সুরৎহাল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনঃ পোস্ট-মর্টেম সিলেট ২ আসন

শনিবার, ০৬ এপ্রিল ২০১৯

সুরৎহাল একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনঃ পোস্ট-মর্টেম সিলেট ২ আসন

Muktoবশীর উদ্দীন আহমেদঃ  সম্প্রতি সিলেট ২ (ওসমানীনগর-বিশ্বনাথ) আসনের সাংসদ জনাব মোকাব্বির খান শপথ নেয়ার পর ডঃ কামাল হোসেন ও ফখরুল মহোদোয়ের প্রতিক্রিয়া দেখে খালি চোখে মনে হতে পারে তাদের দয়ায় মোকাব্বির খান এমপি হয়েছেন। আসলে তা’ মোটেই সঠিক নয়। যদি তাই হত তাহলে রব,মান্না,পার্থ কিম্বা রণির মত বাঘা বাঘা নেতাও এক্স এমপিরা ধরাশায়ী হতেন না। সরজমিনে খোজ নিয়ে জানা গেছে ,সিলেট ২ আসনটি বারবার জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী সমর্থকরা সংক্ষুব্ধ হয়ে জাতীয় পার্টিকে সমর্থন না মোকাব্বির খানকে মৌন সমর্থন দেন, নিরবে ভোট দেন। একপর্যায়ে মোকাব্বির সর্বদলীয় প্রার্থী হয়ে যান এবং জয়লাভ করেন। পরিস্থিতি বিবেচনায় এবং সঙ্গত কারণেই তার শপথ গ্রহন যুক্তিযুক্ত বলে মনে হয়েছ। বৈরী পরিস্থিতি এবং পরিবেশে তার এলাকার  ভোটারগণ তার প্রতি যে আস্থা, বিশ্বাস রেখেছেন তার সঠিক মূল্যায়ন না করে অন্য কোন এজেন্ডা বাস্তবায়ন করলে তা’ হবে দায়িত্ব অবহেলা ও জনগণের সাথে প্রতারণার সামিল।এখানে সকল কৃতিত্ব জনগণের ঐক্যফ্রন্টের একার নয় আর শুধুমাত্র ঐক্যফ্রন্ট বা গণফোরামের কারণে তিনি বিজিত হননি। এছাড়া তিনি ঐক্য ফ্রন্টের ধানের শীষ নিয়েও নির্বাচন করেননি। এই আসনে নৌকার কোন প্রার্থী না থাকায় তারা মোকাব্বির খানকেই মন্দের ভাল হিসেবে বিবেচনা করেছেন।

পোস্টমর্টেম মৌলবীবাজার-২ কূলাউরা আসনঃ-


এখানে সূলতান বিসমিল্লাহ থেকেই বলে আসছে তিনি ঐক্যফ্রন্টের কেউ না। মুজিব কোর্ট গায়ে দিয়ে জয় বাংলা বলে নির্বাচন করেছেন। অপরদিকে বিএনপির এম এম শাহীন কে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা অন্তর থেকে মেনে নিতে পারেননি পারার কথাও নয়।  এছাড়া  সুলতানের সাথে রয়েছে কুলাউড়া আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগের নাড়ীর সম্পর্ক। এখানেও আওয়ামী লীগই ছিল আসল ফ্যাক্টর। সূলতান বারবার আমি বঙ্গবন্ধুর সৈনিক বলার পর ও বিএনপি ভোট দিয়েছে কারণ তাদের নেতা শাহীন ততক্ষণে নৌকায় উঠে গেছে।  এ কারণেই কুলাউড়ায় নৌকা ডুবেছেো।  আর ওসমানীনগরে নৌকা ছিলই না।  তাই ঐক্যফ্রন্ট বা গণ ফোরামের কোন একক কৃতিত্ব নেই এখানে।। থাকলে রব,মান্না,পার্থ,রণির মত বড় বড় নেতা কুপোকাত হতেন না। তাই এরা বেঈমানী করেছে নাকি ঈমানদার আছে এর বিচারের মালিক তাদের স্ব স্ব এলাকার জনগণ ডঃ কামাল বা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নয় বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন।  এই বিজয়ের শতভাগ কৃতিত্ব তাদের এলাকার ভোটারদের।  ঐক্যফ্রন্ট বা গণ-ফোরামের কোন একক কৃতিত্ব নেই।

বিদ্রঃ মতামত একান্তই লেখকের ।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা, ০৬, এপ্রিল ২০১৯

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:৩২ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৬ এপ্রিল ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com