সালমান রুশদী হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে

হাদি মাতার নামে এক সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

বিতর্কিত লেখেক সালমান রুশদী

 

লেখক সালমান রুশদীর মুখপাত্র বলেছেন, নিউইয়র্কে ছুরি হামলায় গুরুতর আহত হওয়ার পর লেখকের ‘খবর ভালো নয়’। তার গলা ও পাকস্থলীয় ছুরিকাঘাত করা হয়েছে এবং তিনি চোখ হারাতে পারেন।


অ্যান্ড্রু ওয়াইলি এক বিবৃতিতে বলেছেন যে,  রুশদীকে মঞ্চেই আক্রমণ করা হয়েছে এবং এখন তিনি হাসপাতালের ভেন্টিলেশনে রয়েছেন ও কথা বলতে পারছেন না।

উনিশশো আটাশি সালে স্যাটানিক ভার্সেস বইটি প্রকাশের পর থেকে  রুশদী ইসলামপন্থীদের রোষের মধ্যে ছিলেন।

তার ওপর হামলার ঘটনায়  ২৪ বছর বয়সী হাদি মাতার নামে এক সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করেছে  নিউজার্সি পুলিশ  ।

নিউইয়র্কের পুলিশ বলছে, শিটোকোয়া ইন্সটিটিউশনে সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তি দৌড়ে মঞ্চে গিয়ে রুশদী এবং তার সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীর ওপর আক্রমণ করে।

অ্যান্ড্রু ওয়াইলি বলছেন, “সালমান সম্ভবত চোখ হারাতে পারেন। তার বাহুর নার্ভ এবং লিভার ছুরির আঘাতে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে”।

সালমান রুশদীর ওপর হামলার অভিযোগে  গ্রেপ্তার হাদি মাতার [ ছবিঃ সংগৃহীত ]

পুলিশ এখনো এই হামলার মোটিভ সম্পর্কে কোন ধারনা দিতে পারেনি। তারা অনুষ্ঠানস্থলে পাওয়া ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ও একটি ব্যাগ পরীক্ষা করে দেখছে।

রুশদীকে গলায় ও পাকস্থলী বরাবর ছুরিকাঘাত করা হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। হামলার পরপরই তাকে হেলিকপ্টারে করে পেনসিলভানিয়ার একটি হাসপাতালে নেয়া হয়।

অন্যদিকে মঞ্চে  রুশদীর যিনি সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন সেই হেনরি রিসেকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে রাখা হয়েছে। তিনি মাথায় অল্প আঘাত পেয়েছেন।

হত্যার হুমকি পাওয়া নির্বাসিত লেখকদের জন্য কাজ করা একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

পুলিশ এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে, সেখানকার কর্মকর্তা ও দর্শক শ্রোতারা দ্রুত দৌড়ে গিয়ে হামলাকারীকে ধরে ফেলেন ও পরে তাকে আটক করা হয়।

ঘটনার একজন প্রত্যক্ষদর্শী লিন্ডা আব্রামস নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেছেন, বাধা দেয়ার পরেও হামলাকারী মিস্টার রুশদীকেও আঘাত করার চেষ্টা করছিলেন।

“তিনি আঘাত করেই যাচ্ছিলেন। তাকে সরাতে পাঁচ জন লেগেছে। তিনি ছিলেন ক্ষিপ্ত। খুবই শক্তিশালী ও দ্রুতগামী,” বলছিলেন তিনি।

আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী রিটা ল্যান্ডম্যান বলেছেন হামলার পরপর দেখে মনে হচ্ছিলো যে  রুশদী বেঁচে আছেন।

“লোকজন চিৎকার করে বলছিল, এখনো তার পালস পাওয়া যাচ্ছে, পালস পাওয়া যাচ্ছে।”

অনলাইনে পোস্ট করা এক ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এসময় কিছু দর্শক দ্রুত মঞ্চের দিকে ছুটে যাচ্ছেন। সেখানে উপস্থিত লোকজন হামলাকারীকে নিবৃত্ত করে।

পুলিশ বলছে দর্শকদের মধ্যে থাকা একজন চিকিৎসক আহত লেখককে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন।

বিশ্বজুড়ে প্রতিক্রিয়াঃ
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন টুইট করে বলেছেন,রুশদী এমন একটি অধিকার চর্চা করার সময় আক্রান্ত হয়েছেন যেটি রক্ষার চেষ্টায় কখনোই হাল ছাড়া যাবে না।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাঁক্রো বলেছেন,রুশদী ঘৃণ্য ও বর্বর শক্তির কাপুরোষোচিত হামলার শিকার হয়েছেন।

লেখক ও গ্রাফিক নভেল ক্রিয়েটর নেইল গেইম্যান বলেছেন, লেখকের ওপর এ হামলার ঘটনায় তিনি বিস্ময়ে বিমূঢ়।

“তিনি একজন চমৎকার মেধাবী মানুষ। আশা করি তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন,” টুইট বার্তায় লিখেছেন তিনি।

অন্যদিকে নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যাথি হকুল এ ঘটনার তদন্তে করণীয় সব কিছু করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

“একজন মানুষ কয়েক দশক ধরে সত্যি উচ্চারণ করছিলেন। হুমকি সত্ত্বেও নির্ভয়ে কথা বলেছেন সারাজীবন,” বলছিলেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদঃ নিউইয়র্কে সালমান রুশদীর ওপর হামলা

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:৩৪ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com