সাতক্ষীরায় দুই শিশুকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন

বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই ২০১৫

সাতক্ষীরায় দুই শিশুকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন

 

satkhira_55897সামিউল মনির/রবিউল ইসলাম, শ্যামনগর, সাতক্ষীরাঃ শ্যামনগর উপজেলার জয়নগর পল্লীতে রাস্তায় কাঁদা করার অপরাধে গাছের সাথে বেঁধে দুই শিশুকে নির্যাতন করার ঘটনায় সাতক্ষীরা জেলার সর্বত্র তোলপাড় শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকার মাধ্যমে সচিত্র সংবাদটি প্রকাশের পরপরই নড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন ও মানবাধিকার সংগঠনগুলো।


সংবাদটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ার পর বেলা বারটার দিকে শ্যামনগর থানা পুলিশ দুই শিশুর উপর নির্যাতনকারী গোলাম মোস্তফাকে নিজ বাড়ি থেকে আটক করে। পরবর্তীতে নির্যাতনের শিকার হওয়া দুই শিশুর পিতাদের শ্যামনগর থানায় ডেকে নিয়ে পুলিশ মামলার প্রস্তুতি শুরু করে। এ রিপোর্ট প্রস্তুতের সময় পর্যন্ত মামলা না হলেও নির্যাতনের শিকার শিশু নাসিমের পিতা আব্দুল হামিদ বাদি হয়ে মামলা করবে বলে পুলিশ প্রতিবেদককে নিশ্চিত করে।

উল্লেখ্য পায়ে চলাচলের রাস্তায় কাঁদা করার অপরাধে স্থানীয় এমরান আলী মোড়লের ছেলে গোলাম মোস্তফা ১৬ জুলাই সকাল সাতটার দিকে ইয়াছিন (৮) ও নাছিম (৯) নামের দুই শিশুকে আটক করে। এক পর্যায়ে দু’জনকে বাড়ির ভিতরে নিয়ে শুরুতে তাদের পায়ে লোহার শিঁকল দিয়ে বেঁধে ফেলা হয়। পরবর্তীতে ছাড়িয়ে যাওয়ার শংকায় গোলাম মোস্তফা দড়ি দিয়ে আগে হাত বেঁধে নিয়ে পরে একই দড়ি দিয়ে দুই শিশুকে একটি গাছের সাথে বেঁধে রাখে। দীর্ঘক্ষণ ধরে শিশুদের কোন খোঁজ না পেয়ে প্রতিবেশীদের মাধ্যমে তাদের পরিবার বিষয়টি জানতে পেরে গোলাম মোস্তফার বাড়িতে যেয়ে ঐ দৃশ্য দেখে। এসময় অনেক অনুনয় বিনয় করার পরও বেলা সাড়ে বারটা পর্যন্ত তাদেরকে একইভাবে বেঁধে রাখা হয়। এক পর্যায়ে তাদের পরিবারের দাবির প্রেক্ষিতে আটক দুই শিশুকে শুকনো সাবু খেতে দেয় তারা। এসময় আটক শিশু দুজনের পরিবারের সদস্যদের সাথে খারাপ আচারণ করে ইয়াছিন ও নাছিমকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরবর্তীতে নিজেরাই বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিটমাট করে নেয়ার জন্য নিয়াতিত শিশুদের পরিবারকে জানায়, গোলাম মোস্তফা।

কিন্তু ৩/৪ দিনেও বিষয়টি নিস্পত্তি না হলে লোকমুখে বিষয়টি জানাজানি হয় এবং দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশিত হয়। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, গতকাল সংবাদটি প্রকাশের পর তা সর্বত্র আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়। এক পর্যায়ে অমানবিক ঐ সংবাদটি সম্পর্কে পুলিশ অবগত হওয়ার পর তারা নির্যাতনকারী গোলাম মোস্তফাকে আটক করাসহ মামলার যাবতীয় প্রস্তুতি শুরু করে। এদিকে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশের প্রেক্ষিতে সর্বস্তরের মানুষ মুটোফোনে কল করে দৈনিক পত্রদূত পত্রিকাকে অভিনন্দন জানান। সুত্রঃ দৈনিক পত্রদূত

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা/ ২৩ জুলাই ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:০৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com