রাজশাহী মেডিকেলের ৪০ জন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী কোয়ারেন্টিনে

বুধবার, ২২ এপ্রিল ২০২০

রাজশাহী মেডিকেলের ৪০ জন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী কোয়ারেন্টিনে

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ছয় জন চিকিৎসকসহ ৪০ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে আসায় তাদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়।

৪০ জনের মধ্যে ছয়জন চিকিৎসক রয়েছেন। তাদের রাজশাহী পর্যটন মোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। বাকিদের প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবেন বলে জানা গেছে।


এছাড়াও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে নতুন রোগী ভর্তি বন্ধ রেখে যারা চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের চিকিৎসার পাশাপাশি করোনা পরীক্ষাও ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস।

তিনি জানান, মঙ্গলবার বিকেলে তাদের চিহ্নিত করে কোয়ারেন্টিনে পাঠানোর পর তাদের আগামী দুই দিনের মধ্যে সবার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে ।

তিনি আরও জানান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গতকাল (সোমবার) চিকিৎসাধীন একজন রোগীর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। তার নাম আব্দুস সোবহান। ৮০ বছর বয়সের ওই রোগী গত ১৭ এপ্রিল রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভর্তি হয়েছিল। প্রথমে তাকে ৪২ ও পরে ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডে নেয়া হয়। এক্সরে করার পর করোনার লক্ষণ পাওয়া গেলে তাকে সংক্রমক ব্যাধি হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। সোমবার তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার পর করোনা পাওয়া যায়।

এই করোনা রোগী নিয়ে হাসপাতালকে ঝুঁকিপূর্ণ উল্লেখ্য করে চিকিৎসকদের প্রকাশ্যে নিয়মিত ব্রিফিং বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। প্রতিদিন সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালের গেটে করোনাভাইরাসের রাজশাহীর সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে চিকিৎসকরা ব্রিফিং করতেন। কিন্তু বুধবার থেকে এখনো আর ব্রিফিং করা হবে না। তবে সেটি অনলাইনে করার চিন্তা চলছে বলে জানিয়েছেন করোনা নির্ণয় ও চিকিৎসক টিমের প্রধান ডা. আজিজুল হক আজাদ।

মঙ্গলবার নিয়মিত ব্রিফিংয়ে ডা. আজাদ বলেন, সংক্রমক হাসপাতালে ভর্তি রোগীর বয়স ৮০ বছর। তাকে বুঝতে আমাদের একটি দেরি হয়ে যায়। কারণ তিনি বলেননি বাহির থেকে আসা কারও সংস্পর্শে গিয়েছিলেন। তিনি জ্বর ও প্রস্রাবের সমস্যার কথা বলে ভর্তি হয়েছিলেন। সেভাবেই তার চিকিৎসা দেয়া হয়। তবে তার এক্সে করার পর করোনার উপসর্গ কিছুটা বোঝা যায়। এর পর তাকে করোনা ওয়ার্ডে পাঠানো হয়। পরে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠায়।

ডা. আজাদ বলেন, এই রোগীর চিকিৎসা শুরু হয়েছে। তিনি এখন পর্যন্ত ভালো আছেন। সংক্রমক ব্যাধি হাসপাতালে তার স্ত্রী ও ছেলে রয়েছেন। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করে দেখা হবে তাদের অবস্থা। এছাড়াও সংক্রমক ব্যাধি হাসপাতালে আরও যে নয়জন ভর্তি রয়েছেন তারা সুস্থ আছেন। তাদের নমুনায় করোনা পাওয়া যায়নি। তাদের ছেড়ে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, রাজশাহীতে আক্রান্ত অপর সাত রোগী ভাল রয়েছেন। সবার চিকিৎসা চলছে। তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। ১৪ দিন পার হওয়ার পর প্রত্যেকের দ্বিতীয় পরীক্ষা করা হবে বলে জানান তিনি।

সোমবার পরীক্ষার পর রাজশাহীতে আরও তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে দুইজন মহিলা ও একজন পুরুষ। এ নিয়ে রাজশাহীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে আটজনে।

রাজশাহী জেলার আটজনের মধ্যে পুঠিয়া উপজেলায় পাঁচজন, বাঘায় একজন, বাগমারায় একজন ও মোহনপুরে একজন আক্রান্ত রয়েছেন। এদের মধ্যে চারজন নারী ও চারজন পুরুষ। তাদের মধ্যে সাতজন ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর থেকে এসেছেন।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ এপ্রিল ২২, ২০২০

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২২ এপ্রিল ২০২০

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com