রাঙামাটিতে পাহাড়ি সংগঠনের সংঘর্ষে তিনজন নিহত

সোমবার, ১৫ জুন ২০১৫

রাঙামাটিতে পাহাড়ি সংগঠনের সংঘর্ষে তিনজন নিহত

 

Rangamati20150527041512হরার হোসেন, বিবিসি বাংলাঃ বাংলাদেশের রাঙামাটি জেলায় পাহাড়িদের দুটি সংগঠনের সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। পার্বত্য অঞ্চলে স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলনরত গোষ্ঠী ইউপিডিএফ বলছে, সরকারের সাথে ১৯৯৭ সালে শান্তিচুক্তি সম্পাদনকারী দল জনসংহতি সমিতি বা জেএসএস সদস্যরা আজ সকালে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে তাদের তিন সদস্যকে হত্যা করেছে। অবশ্য জেএসএস এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।


জেএসএস এবং বিপক্ষের দল হিসেবে পরিচিত ইউপিডিএফ বহু বছর ধরে বিবাদে লিপ্ত।

বাংলাদেশের রাঙামাটি জেলায় পাহাড়িদের দুটি সংগঠনের সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

পার্বত্য অঞ্চলে স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলনরত গোষ্ঠী ইউপিডিএফ বলছে, সরকারের সাথে ১৯৯৭ সালে শান্তিচুক্তি সম্পাদনকারী দল জনসংহতি সমিতি বা জেএসএস সদস্যরা আজ সকালে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে তাদের তিন সদস্যকে হত্যা করেছে। জেএসএস এবং বিপক্ষের দল হিসেবে পরিচিত ইউপিডিএফ বহু বছর ধরে বিবাদে লিপ্ত।

পুলিশ বলছে, রবিবার ভোরবেলা রাঙামাটির লংগদু উপজেলার ভাইবোনছড়া এলাকায় এক সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়।

পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে এদের সবাইকেই ইউপিডিএফ এর সদস্য হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

বিবদমান জনসংহতি সমিতি বা জেএসএস এর সদস্যদের হামলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে পুলিশ উল্লেখ করছে এবং ঘটনাস্থলে উভয়পক্ষই গুলিবিনিময় করেছে বলেও জানাচ্ছেন রাঙামাটির পুলিশ সুপার সায়িদ তারিকুল হাসান।

১৯৯৭ সালে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের সাথে এক শান্তি চুক্তির মাধ্যমে অস্ত্র সমর্পণ করে পাহাড়ের স্বায়ত্তশাসনের দাবীতে দীর্ঘ দিন ধরে সশস্ত্র সংগ্রামে থাকা জেএসএস।

কিন্তু একটি অংশ শান্তিচুক্তির বিরোধিতা করে পরে ইউপিডিএফ গঠন করে।

১৯৯৮ সালে ইউপিডিএফ গঠনের পর থেকেই জেএসএস-এর সাথ তার বিরোধে লিপ্ত।

বেশীরভাগ সময়েই এই বিরোধ রূপ নিয়েছে রক্তাক্ত সংঘর্ষে।

জেএসএস বিরোধ থাকার কথা স্বীকার করছে তবে আজকের হত্যাকাণ্ডের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

দু’পক্ষের বক্তব্যে এটা মনে হচ্ছে যে স্রেফ রাজনৈতিক কারণেই সম্ভবত তাদের এই বিরোধ, কিন্তু পুলিশ বলছে এখন আর দুপক্ষের এই বিরোধ রাজনৈতিক নেই, বরঞ্চ স্থানীয়ভাবে আধিপত্য বিস্তারে মনোযোগ দিয়েছে তারা এবং একারণেই প্রায়ই সংঘর্ষ হয় দু’পক্ষের মধ্যে।

অবশ্য যে কারণেই এই বিবাদ হয়ে থাকুক না কেন, তা তিন পার্বত্য জেলায় এত নৈমিত্তিক একটি ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে যে পার্বত্য শান্তি চুক্তি সাক্ষরের প্রায় দেড় যুগ পরে এসেও ওই এলাকায় শান্তি স্থাপন করাটা সুদূর পরাহত থেকে যাচ্ছে।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ১৫ জুন ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৪:৫৬ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১৫ জুন ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com