যুবদলের ঘরোয়া বৈঠকে পুলিশের লাঠিপেটা গুলি, আহত ২৫

শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০

যুবদলের ঘরোয়া  বৈঠকে  পুলিশের লাঠিপেটা গুলি, আহত ২৫
পুলিশের লাঠিপেটা ও গুলিতে অন্তত ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় যুবদলের ঘরোয়া বৈঠকে হামলা চালিয়েছে পুলিশ। তারা নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে এবং গুলি চালায়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে যুবদল নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকেলে নবীনগর পৌর শহরের আলীয়াবাদ মদন মেম্বারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জেলা বিএনপির দাবি, পুলিশের লাঠিপেটা ও গুলিতে অন্তত ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের জেলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।


আহত নেতাদের মধ্যে রয়েছেন যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি টিম প্রধান জাকির হোসেন সিদ্দিকী, জেলা যুবদলের সভাপতি শামীম মোল্লা, সহসভাপতি রাশেদুল হক রাশেদ, তাজুল ইসলাম বাবুল, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মাহমুদ।

যুবদল সূত্রে জানা যায়, আলীয়াবাদ মদন মেম্বারের বাড়িতে বিকেলে উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় বিপুল সংখ্যক পুলিশ ওই বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ব্যাপক লাঠিপেটা করে এবং গুলি ছোঁড়ে। এতে অন্তত ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়।

খবর পেয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচিসহ নেতারা আহতদের দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান। এ সময় হাফিজুর রহমান মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, ‘পুলিশ অতর্কিতভাবে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষণ করলে ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়।’

এ বিষয়ে নবীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বলেন, ‘সভা করার কোনো অনুমতি না থাকার পরও তারা বাড়িতে সভা করে। পুলিশ সেখানে উপস্থিত হলে তারা নিজেরাই ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে।’

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ অক্টোবর ২৪, ২০২০

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:২৯ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com