যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় প্রবাসীদের লাশের তালিকা বেড়েই চলেছে

এ পর্যন্ত মারা গেছে ৭৮

সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় প্রবাসীদের লাশের তালিকা বেড়েই চলেছে

করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে।  ৫ এপ্রিল স্থানীয়  মধ্যরাত পর্যন্ত করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে ৭৮ জন বাংলাদেশির খবর পাওয়া গেছে।  আরো কয়েক শ’ প্রবাসী বিভিন্ন হাসপতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা যায়।  সব চেয়ে বেশি রয়েছেন নিউইয়র্কে।

কারনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যাঁরা মারা গেছেন, তাঁদের মধ্যে আছেন মৌলভীবাজার-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমদ, সাইফুল আজাদ, হাফেজ রুবেল, তামিনা ইসলাম খান, বাচ্চু মিয়া, মো. আজাদুর রহমান, তোফায়েল আহমদ, বাবুল মিয়া (ব্রুকলিন), মাওলানা ইসহাক মিয়া, বাবুল মিয়া (ওজন পার্ক) ও ব্রঙ্কসে বসবাসকারী ইসরাত জাহান উর্মির মাতা, বিএনপি নেতা বাকের আজাদ। যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া স্বদেশিদের অধিকাংশই নিউইয়র্কের বাসিন্দা ছিলেন।


নিউজার্সিতে একজন ও মিশিগানে একজন প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া প্রবাসীদের অধিকাংশই নিউইয়র্কের বাসিন্দা ছিলেন। ছবি: সংগৃহীতকরোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। স্থানীয় সময় ৫ এপ্রিল রোববার মধ্যরাত পর্যন্ত করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে ৭৬ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। কয়েক শ প্রবাসীর আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

কারনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যাঁরা মারা গেছেন, তাঁদের মধ্যে আছেন মৌলভীবাজার-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমদ, সাইফুল আজাদ, হাফেজ রুবেল, তামিনা ইসলাম খান, বাচ্চু মিয়া, মো. আজাদুর রহমান, তোফায়েল আহমদ, বাবুল মিয়া (ব্রুকলিন), মাওলানা ইসহাক মিয়া, বাবুল মিয়া (ওজন পার্ক) ও ব্রঙ্কসে বসবাসকারী ইসরাত জাহান উর্মির মাতা। যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া স্বদেশিদের অধিকাংশই নিউইয়র্কের বাসিন্দা ছিলেন।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশি পরিবারের কোনো স্বজন বা পরিচিত মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। ডাক্তার, ইএমএস, পুলিশ, ট্রাফিকসহ পেশাজীবীদের অনেকেই আক্রান্ত। মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রচারে অনেকেই অজানা আতঙ্কে ভুগছেন।

বাংলাদেশ সোসাইটির কামাল আহমদের মৃত্যু সংবাদের জের কাটার আগেই সোসাইটির সাবেক দুবারের সভাপতি ও ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য আজিজ মোহাম্মদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সোসাইটির অপর নেতা আজাদ বাকেরের অবস্থা সংকটজনক। সাবেক ছাত্রনেতা কমিউনিটির পরিচিত ব্যক্তিত্ব শাহাব উদ্দিনের শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে। কোনো সাপোর্ট ছাড়াই তিনি শ্বাস নিতে পারছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসীদের বহু সংগঠন ও ব্যক্তিবিশেষ কামাল আহমদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে।

নানা সাহায্য-সহযোগিতার পাশাপাশি বিপন্ন লোকজনকে সাহায্যের জন্য প্রবাসী সংগঠনগুলো এগিয়ে এসেছে। কনস্যুলেট অফিসসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংগঠনগুলো হটলাইন খুলে ২৪ ঘণ্টা সাহায্য ও পরামর্শ দিতে এগিয়ে এসেছে।

মারা যাওয়া লোকজনকে সমাহিত করার জন্য মসজিদসহ নানা সংগঠন থেকে প্রয়োজনে সাহায্যের কথা জানানো হয়েছে। ম্যানহাটনের আসসাফা ইসলামিক সেন্টার, পার্চেষ্টার জামে মসজিদসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান প্রবাসীদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে। স্বদেশিদের যেকোনো প্রয়োজনে কমিউনিটি নেতা ও সংবাদমাধ্যমের যেকোনো লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

নিউইয়রক শহরের  ৩১১ নম্বর বা করোনা রোগীদের জন্য 1-844-NYC-4 NYC  জর্জিয়ায় 1-844 – 442- 2681 নম্বরে কল দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সব অঙ্গরাজ্যেই ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সব ধরনের ধর্মীয় সমাবেশ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ এপ্রিল ০৬, ২০২০

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:৪৬ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com