যাদের ভূমিকায় ব্যর্থ তুরস্কের সেনা অভ্যুত্থান

রবিবার, ১৭ জুলাই ২০১৬

যাদের ভূমিকায় ব্যর্থ তুরস্কের সেনা অভ্যুত্থান

Inter Nationalগত ৫৫ বছরে ইতিহাসে ইউরোপ-এশিয়ার সংযোগকারী দেশ তুরস্কে এ নিয়ে পাঁচ দফা সেনা অভ্যুত্থান হয়। কিন্তু দেশটির ইতিহাসে এই প্রথম কোনো সামরিক অভ্যুত্থান ব্যর্থ হলো।

১৯৬০ সাল থেকে চার দফা অভ্যুত্থানে নির্বাচিত সরকারকে হাটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। শুক্রবার (১৫ জুলাই) পঞ্চম দফায়ও প্রেসিডেন্ট এরদোগানকে হটিয়ে ক্ষমতা দখলের চেষ্টা করেছিল সামরিক বাহিনী।


সর্বশেষ এ চেষ্টার শুরুতে আংকারা, ইস্তাম্বুলের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা দখলে নেয় সেনা সদস্যরা। দৃশ্যত মনে হচ্ছিল বিদায়ী শতাব্দির চার অভ্যুত্থানের মতোই এবারও একই অবস্থা, নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে সেনাবাহিনী। সরকারি সম্প্রচার মাধ্যমের পাশাপাশি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সেগুলোতে সব ধরনের সম্প্রচার বন্ধ করে দেয় তারা। সম্প্রচার বন্ধের আগে দেশজুড়ে সামরিক শাসন জারি ও সব শহরে কারফিউ বলবদের ঘোষণা দেয়া হয়।

অভ্যুত্থানের শুরুতে বোঝা যাচ্ছিল না অবকাশে থাকা প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের সর্বশেষ অবস্থা। দেশের একেবারে দক্ষিণ-পশ্চিমের সাগরতীরে অবকাশ কেন্দ্র মারমাসিসে তিনি আছেন বলে সংবাদ মাধ্যমে বলা হচ্ছিল। সেখানে সেনারা বোমা হামলা চালিয়েছে বলেও জানিয়েছিল কোনো কোনো গণমাধ্যম। ফলে প্রেসিডেন্টের অবস্থান নিয়ে দেখা দেয় ধোয়াশা।

Turky 02কিছুক্ষণের মধ্যে এরদোয়ানকে দেখা গেলো স্থানীয় একটি টেলিভিশনে বক্তব্য রাখতে। অভ্যুত্থানের খবর শুনে তিনি ছুটে আসেন ইস্তাম্বুলে। বিমানবন্দরে নেমে নিজের স্মার্ট মোবাইল ফোনটি কাজে লাগান কার্যকরভাবে। অ্যাপলের ফেইস টাইম অ্যাপ ব্যবহার করে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। অভ্যুত্থান প্রতিহত করতে জনগণকে রাজপথে নেমে আসার আহ্বান জানান তিনি। ফেস টাইমে দেয়া এরদোয়ানের এ বক্তব্য সম্প্রচার করে সিএনএন-তুর্ক টেলিভিশন।

ওই আহ্বান সম্প্রচারের কিছুক্ষণের মধ্যে পাল্টে যেতে শুরু করে দৃশ্যপট। হাজারো মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। প্রথমে অভ্যুত্থানকারী সেনা সদস্যরা জনতার উপর দু’এক জায়গায় গুলি চালালেও প্রবল প্রতিরোধের মুখে তা ভেস্তে যেতে শুরু করে।

তখনও রাজধানী আংকারা বিদ্রোহিদের নিয়ন্ত্রণে। ইস্তাম্বুলে দৃশ্যপট পরিবর্তনের কয়েকঘণ্টার মধ্যে আংকারাও হাতছাড়া হয়ে যায় বিদ্রোহী সেনাদের। ফলে পুরো অভ্যুত্থান ব্যর্থ হয়। পুরো কৃতিত্ব ক্ষমতাসীন দলের নিবেদিতপ্রাণ হাজারো নেতাকর্মী এবং সাধারণ জনগণের, যারা রাস্তায় নেমে এসে দেশটিতে পাঁচ দফা সামরিক অভ্যুত্থান চেষ্টা ব্যর্থ করে দেয়।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / জুলাই ১৭ , ২০১৬

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১১:০২ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১৭ জুলাই ২০১৬

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com