মোদির সাথে ঢাকায় গেলে কী পাবেন মমতা?

রবিবার, ৩১ মে ২০১৫

মোদির সাথে ঢাকায় গেলে কী পাবেন মমতা?

 

কলকাতাঃ হঠাৎ করেই ঢাকা সফরে রাজি হয়ে বিপুল আলোচনার জন্ম দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তিস্তা চুক্তি সম্পন্ন করবেন না, এমন আশ্বাসের পর তিনি বাংলাদেশে আসতে রাজি হয়েছেন বলে শুক্রবার সংবাদ প্রকাশ করে কলকাতাভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার। শনিবার ইকোনমিক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে রাজ্যে সহায়তার আশ্বাসের ভিত্তিতে বাংলাদেশ সফরে রাজি হয়েছেন তিনি। আর মমতার হঠাৎ করে বাংলাদেশ সফরে রাজি হওয়ার পেছনে তিনিটি কারণ শনাক্ত করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।


ইকোনমিক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, সেচ অবকাঠামোসহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক খাতে অর্থ সহায়তা বরাদ্দ এবং শুষ্ক মৌসুমে বিশেষভাবে তিস্তার পানি ব্যবহার করতে দেয়ার আশ্বাসের ভিত্তিতে মমতাকে ঢাকায় আসতে রাজি করিয়েছেন মোদি। প্রতিবেদনে বলা হয়, মমতাকে ঢাকা সফরের ব্যাপারে রাজি করাতে গেল কয়েক মাস ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুসমা স্বরাজ। আর সেইসঙ্গে সম্প্রতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কলকাতা সফরও এ ব্যাপারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনটি উল্লেখযোগ্য কারণে ঢাকা সফরে মমতা সম্মতি জানিয়ে থাকতে পারেন। সংবাদমাধ্যমটির শনাক্ত করা তিনটি কারণের একটি হলো ছিটমহল বিনিময়ের পর সেখানে যারা বৈধ নাগরিকত্ব পেয়েছেন তাদের ৩০শে জুলাইয়ের মধ্যে পুনর্বাসিত করতে রাজ্য সরকারকে বাধ্যবাধকতা দেয়া হয়। তবে কেন্দ্রীয় সরকার এ ব্যাপারে কী সহায়তা দিতে যাচ্ছে তা নির্দেশিকায় উল্লেখ করা ছিল না। আর তাই ৩০শে জুলাইয়ের ডেডলাইনকে কঠিন বলেই মনে করেন মমতা। সেকারণে এ চাপ থেকে রেহাইয়ের আশায় মমতা সফরে রাজি হয়ে থাকতে পারেন বলে মনে করছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

দ্বিতীয় কারণ হিসেবে সংবাদমাধ্যমটি উল্লেখ করেছে, সম্প্রতি কলকাতা সফরে গিয়ে তিস্তা চুক্তির ব্যাপারে রাজনাথের ঘোষণার কথা। তিস্তা চুক্তির খসড়াটির পরিবর্তন চান মমতা। কিন্তু রাজনাথের ঘোষণার পর মমতার মনে হতে পারে যে যদি এ যাত্রায় চুক্তি হয়ে যায় তবে খসড়াটি তিনি পরিবর্তন করাতে পারবেন না। আর সেকারণেই এবার চুক্তি না হওয়ার আশ্বাস নিয়েছেন মমতা।

সর্বশেষ যে কারণটি টাইমস অব ইন্ডিয়া শনাক্ত করেছে তা এক্ষেত্রে খুব একটা প্রাসঙ্গিক না। তাহল মমতার দল তৃণমূল কংগ্রেস আয়কর রিটার্ন জমা দেয়নি এমন অভিযোগ তুলেছে সিবিআই নেতারা। আর একে মমতার উপর চাপ তৈরি করার প্রক্রিয়া হিসেবে দেখছে তৃনমূল কংগ্রেস। আর সে চাপ এড়াতে মমতা হয়তো ঢাকা সফরকে বেছে নিয়েছেন বলে মনে করে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

এদিকে শুক্রবারের আনন্দবাজার জানায়, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে মমতাকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে যে, তিনি ঢাকায় গিয়ে তিস্তা নিয়ে কোনও কথা বলবেন না। ওই চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যখন একমত নন, তখন শুধু বাংলাদেশের কথায় তিনি চুক্তি করবেন, এটা হতেই পারে না। রাজনাথও এ দিন বলেন, এই সফরেই তিস্তা চুক্তি হয়ে যাবে এমন কথা তিনি বলতে চাননি। তিনি বলতে চেয়েছিলেন, দুই দেশের মধ্যে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে অদূর ভবিষ্যতে এই চুক্তি হবে বলে তিনি আশাবাদী।

মমতার দাবি,তিনি তিস্তা চুক্তির বিরুদ্ধে নন। “কিন্তু উত্তরবঙ্গকে বঞ্চিত করে তো চুক্তি করা উচিত নয়।’’ মন্তব্য করেন তিনি।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ ৩১ মে ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, ৩১ মে ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com