মোটর সাইকেল ছেড়ে দিতে হওয়ায় পুলিশ কর্মকর্তাকে পেটালেন ছাত্রলীগ নেতা

মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০১৬

মোটর সাইকেল ছেড়ে দিতে হওয়ায়  পুলিশ কর্মকর্তাকে পেটালেন ছাত্রলীগ নেতা

নাটোরঃ ছাত্রলীগ কর্মীর রেজিষ্ট্রেশন বিহীন মোটরসাইকেল জব্দ করায় নাটোরের বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক আশরাফুল ইসলামকে প্রকাশ্যে চড়-থাপ্পর মারার পরও শুধু মাত্র হাত ধরেই ক্ষমা পেলেন বড়াইগ্রাম থানা ছাত্রলীগ সভাপতি। রেজিস্টিবিহীন মোটরসাইকেল আটকের পর ছেড়ে দিতে দেরি করায় নাটোরের বনপাড়ায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান ও তার সঙ্গীরা এক পুলিশ কর্মকর্তাকে বেধড়ক মারধর করেছে। রবিবার সন্ধ্যায় বনপাড়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খ্রিস্টান ব্যবসায়ী সুনীল গোমেজ হত্যাকাণ্ডের পর বনপাড়া এলাকায় পুলিশ রেজিস্ট্রিবিহীন ও তিনজন বহনকারী মোটরসাইকেল আটক অভিযান চালাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে রবিবার বিকেলে বনপাড়া বাজারে চেকপোস্ট বসায় পুলিশ। সন্ধ্যার একটু আগে জিল্লুর রহমানের এক সহযোগীর মোটরসাইকেল আটক করে পুলিশ।

মোটরসাইকেলটি ছেড়ে দিতে বললে এসআই আশরাফ এতে অস্বীকৃতি জানান। পরে ছাত্রলীগ নেতা জিল্লুর রহমান জিল্লাহ ওই মোটরসাইকেল ছেড়ে দিতে চাপ দিলে পুলিশ এটি ছেড়ে দেয়। এর কিছুক্ষণ পর জিল্লার নেতৃত্বে ২০ থেকে ২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী ঘটনাস্থলে এসে আশরাফকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে মারতে বলে, ‘মোটরসাইকেল ছাড়তে দেরি করলি কেন।’ প্রকাশ্যে শত শত মানুষের সামনে পুলিশের পোশাক ধরে তাকে টানাহেঁচড়া করা হয়।


এ ব্যাপারে লাঞ্ছিত পুলিশ কর্মকর্তা আশরাফ বলেন, বিষয়টি পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা জিল্লুর রহমান জিল্লাহ বলেন, মারধরের ঘটনা ঘটেনি। কিছুটা বাকবিতণ্ডা হয়েছে।

নাটোরের পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার মুখার্জি জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখতে এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্তের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / জুন ২১,২০১৬

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২১ জুন ২০১৬

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com