বিজেপির সরকারি টুইটার হ্যান্ডল থেকে এনআরসি টুইট ডিলিট

মুসলমানদের ঠিক রেখে কি পিছু হঠছেন মোদী–শাহ?

শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯

মুসলমানদের ঠিক রেখে কি  পিছু হঠছেন মোদী–শাহ?
নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ (ফাইল ছবি)

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের প্রচার চলাকালীন বিজেপির সরকারি টুইটার হ্যান্ডল থেকে প্রকাশিত হয়েছিল এনআরসি বিষয়ক একটি টুইট। দেশজুড়ে সিএএ-এনআরসি নিয়ে প্রতিবাদের জেরে এই টুইটটিকে গতকাল, ১৯ ডিসেম্বর ডিলিট করল বিজেপির আইটি সেল।

১১ এপ্রিল করা এই টুইটের বক্তব্য ছিল, ‘আমরা নিশ্চিত করব যাতে দেশজুড়ে এনআরসি হয়। দেশ থেকে প্রত্যেকটি অনুপ্রবেশকারীকে বের করব আমরা, একমাত্র বৌদ্ধ, হিন্দু এবং শিখ ব্যতিরেকে’। অনুচ্চারিত বার্তা ছিল, ভারতের মুসলমান সম্প্রদায়কে কোণঠাসা করে ফেলা হবে। বর্তমানে সারা দেশে জাতিধর্ম নির্বিশেষে প্রতিবাদ এবং বিক্ষোভ চলছে সিএএ-এনআরসি নিয়ে। এর জেরেই বৃহস্পতিবার এই টুইট ডিলিট করা হয় বলে করছেন বিশেষজ্ঞ মহল। টুইট ডিলিট করার কিছুক্ষণের মধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশে একটি টুইট করেন রাজ্যসভায় তৃণমূলের প্রধান সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনি লেখেন, বিজেপি আইটি সেল টুইট ডিলিট করতেই পারে। কিন্তু সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যা বলেছেন, ‘আমরা প্রত্যেকটি রাজ্যে এনআরসি করব’, সেটা ডিলিট করতে পারবে না।


thequint_2019-12_ec8b77a6-801f-4d99-af8b-e1d780a92cfa_EMK_YrIU0AAW__pটুইটারের এক জনৈক সদস্য জানিয়েছেন, যা বলার সেটা বলেই দিয়েছেন অমিত শাহ। এখন টুইট ডিলিট করে আর কোনও লাভ নেই। বাকিরা জানান, বঙ্গ বিজেপির টুইটারে এখনও শোভা পাচ্ছে এই টুইট। এপ্রিল মাস থেকেই বিভিন্ন সময়ে, বিভিন্ন সভায় এনআরসি করা হবেই বলে মন্তব্য করেছেন অমিত শাহ। ২ ডিসেম্বর ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনের একটি প্রচার সভায় গিয়ে শাহ এটাও বলেন, যে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগেই বাস্তবায়িত হবে সিএএ এবং এনআরসি। কিন্তু গত এক-দেড় সপ্তাহ ধরে, ভারত ব্যাপী বিরোধিতার মুখে পড়ে খানিকটা হলেও কি পিছু হঠছে বিজেপি? সেই কারণেই এই এই টুইট ডিলিট? প্রশ্ন উঠছে বিশেষজ্ঞ মহলে।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ডিসেম্বর ২৭,২০১৯

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:৫৪ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com