মংলায় মাদ্রাসার মাঠে মেম্বারের ঘাষ চাষ

রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

মংলায় মাদ্রাসার মাঠে মেম্বারের ঘাষ চাষ

Bagerhat loveবাগেরহাট  প্রতিনিধিঃ   জেলার মংলা উপজেলার  উত্তর চাঁদপাই পীর মেছেরশাহ্ দাখিল মাদ্রাসার সুপারের সহযোগীতায় বিগত তিন বছর এ মাঠ দখল করে স্থানীয় এক ইউপি সদস্য ( মেম্বার)  ঘাষ চাষ করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে । ফলে শারীরিক কসরৎ , খেলা-ধুলা করার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে মাদ্রাসার কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাদ্রাসাটির মাঠ বলতে কিছু নেই। মাদ্রাসার পিছনের অংশে নেট জাল দিয়ে ঘেরা প্রায় ১২ শতক জায়গায় দুই হাত লম্বা সবুজ ঘাষে একাকার। বিস্তির্ণ ঘাষে ভরা । কথা হয় মাদ্রাসাটির কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে। ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র মোঃ হোসাইন শেখ, মাঠ নিয়ে রিপোর্ট করার কথা শুনে দৌড়ে এসে বলেন, স্যার স্যার দেখেন আমাদের মাঠ আটকিয়ে মেম্বার ঘাষ চাষ করছেন। আমরা খেলবো কোথায় বলেন ? মাদ্রাসার সুপার (প্রিন্সিপাল) হুমায়ূন কবির এ প্রতিনিধিকে বলেন, মাঠ দখল করে স্থানীয় মতি মেম্বার ঘাষ চাষ করার বিষয়টি সত্য। তবে এতে আমার কোন হাত নেই। মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির নির্দেশে আমি কেবল ঘাষ চাষ করার অনুমতি দিয়েছি। এজন্য মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের অসুবিধা হচ্ছে বলেও স্বীকার করেন তিনি।


মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও চাঁদপাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোল্লা তারিকুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার বক্তব্য নেয়ার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। স্থানীয় বাসিন্দা জহুর আলী ও মিলন শেখ জানান, আজ তিন বছর ধরে মাঠটি দখল করে চাঁদপাই ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মতিউর রহমান তার উন্নত জাতের গরুর জন্য ঘাষ চাষ করে আসছেন। ঘাষ চাষের আগে সেখানে তিনি পেঁপে, কলাসহ বিভিন্ন শাক সবজির চাষ করে ব্যবসা করেছেন। এর সাথে মাদ্রাসার প্রিন্সিপালও জড়িত বলেও জানান তারা।

এলাকার বাসিন্দারা জানান, মেম্বার মাঠ দখল করে রাখায় মাদ্রাসায় ছেল মেয়েরা কোন খেলাধূলা করতে পারেনা। মেম্বার চেয়ারম্যানরা প্রভাবশালী হওয়ায় এনিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েও লাভ হয়নি। আপনারাও লিখে কিছু করতে পারবেন না বলে জানান ।

মেম্বার মতিউর রহমান মাঠ দখল করে ঘাষ চাষের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, মাদ্রাসার মাঠে নতুন বালু ফেলে ভরাট করা হয়েছে তাই বালু যাতে সড়ে না যায় সে জন্য মাঠে ঘেড়া দিয়ে ঘাষ চাষ করে গরুকে খাওয়াই, আমি মিথ্যা বলবো না। তিনি বলেন, আমি ওই মাঠ ভরাট করে কলা, পেঁপে ও পেয়ার গাছ লাগিয়েছি, এখন মাঠের ভালোর জন্য ঘাষ চাষ করছি। ঘাষ বড় হলে মাঠ ছেড়ে দিব। তিনি আরো বলেন,  ছেলেরা খেলাধূলা করবে, ওই মাঠেই করবে কোন সমস্যা নাই। ঘাষ বড় হলে খেলা ধূলার পরিবেশ করে দিব।

এ ব্যপারে  উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ রবিউল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি  বলেন, উত্তর চাঁদপাই পীর মেছেরশাহ্ দাখিল মাদ্রাসার মাঠ দখল করে গরুর জন্য ঘাষ চাষের বিষয়টি তার  জানা ছিলনা, তিনি  দ্রুত এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবেন বলেন সাংবাদিককে জানান।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com