ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তিন বাঙালি মেয়ে এমপি নির্বাচিত

শুক্রবার, ০৮ মে ২০১৫

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তিন বাঙালি মেয়ে এমপি নির্বাচিত

 

Rusnara 01


শনিবার রিপোর্টঃ ব্রিটিশ পার্লামেন্টে এই প্রথমবারের মত তিন বাঙালি মেয়ে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। গতকাল অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে বিজয়ীরা হলেন, রুশনারা আলী, রুপা হক ও টিউলিপ সিদ্দিক। এখানে উল্লেখযোগ্য টিউলিপ সিদ্দিক বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর নাতনি । তথা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার বোন শেখ রেহানার মেয়ে।

টানা দ্বিতীয় বারের মতো ব্রিটেনের এমপি নির্বাচিত হলেন রুশনারা আলি। যুক্তরাজ্যের ৫৬তম জাতীয় নির্বাচনে বেথনেল গ্রিন ও বো থেকে তিনি নির্বাচিত হলেন।

এবারের নির্বাচনে রুশনারা আলি লেবার পার্টির পক্ষে ৩২ হাজার ৮শ’ ৮৭ ভোটে জয় পেয়েছেন তিনি। তার পক্ষে ভোট পড়েছে ৬১ শতাংশ।

রুশনারার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ পার্টির ম্যাথিউ স্মিথ পেয়েছেন ৮ হাজার ৭০ ভোট।

বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনের ৮০ হাজার ভোটারের ৬৩.৯ শতাংশ এবার ভোট দিয়েছেন। বাঙালি অধ্যুষিত এ এলাকার ভোটাররা যে রুশনারাকেই আবারও পার্লামেন্টে পাঠাবে তা একরকম নিশ্চিতই ছিল।

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ২৭৪ ভোটের ব্যবধানে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয় পেয়েছেন বাংলাদেশি বাংশোদ্ভূত রূপা হক। ৪৩ বছর বয়সী রূপা ব্রিটিশ পার্লামেন্টে উত্তর-পশ্চিম লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনের প্রতিনিধিত্ব করবেন।

বৃহস্পতিবার এই নির্বাচনে লেবার পার্টির প্রর্থী রূপা পেয়েছেন ২২ হাজার ২ ভোট। আর ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী এনজি ব্রে পেয়েছেন ২১ হাজার ৭০১ ভোট।

এ আসনে এবার ভোট পড়েছে ৭১ শতাংশ। লেবার পার্টির জন্য এ আসনটি পুনরুদ্ধার করার পথে রূপা হক পেয়েছেন ৪৩.২ শতাংশ ভোট।

প্রায় ৭০ হাজার ভোটারের এই আসনে ২০১০ সালের নির্বাচনে লেবার প্রার্থীকে হারতে হয়েছিল ৩ হাজার ৭১৬ ভোটের ব্যবধানে। সেই ফল উল্টে দেওয়ার কঠিন কাজটিই করেছেন ড. রূপা।

rupa_huq-6-of-12-hr-cropরূপ হক কেমব্রিজে পড়েছেন রাজনীতি, সামাজিক বিজ্ঞান ও আইন। আর কিংস্টন ইউনিভার্সিটিতে এতোদিন পড়িয়েছেন সমাজ বিজ্ঞান, অপরাধ বিজ্ঞান, গণমাধ্যম ও সংস্কৃতি অধ্যায়নের মতো বিষয়। এর আগে ডেপুটি মেয়র হিসাবে স্থানীয় সরকারেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

১৯৭২ সালে ইলিংয়ে জন্ম নেওয়া রূপা হক ১৯৯১ সালে লেবার পার্টির সদস্য হন। তিনি একাধারে লেখক, মিউজিক ডিজে, কলামনিস্ট হিসাবে পরিচিত। আর তার ছোট বোন কনি হক বিবিসির ব্লু পিটার শো উপস্থাপনার কল্যাণে ব্রিটিশদের কাছে খুবই পরিচিত মুখ।

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে লন্ডনের সবচেয়ে আলোচিত হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনে লেবার পার্টির বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক জয়ী হয়েছেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি।

৭ মে অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে টিউলিপ ২৩ হাজার ৯৭৭ ভোট পেয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ পার্টির প্রার্থী সায়মন মার্কাস পেয়েছেন ২২ হাজার ৮৩৯ ভোট। লিবারেল ডেমোক্র্যাটস পার্টির মাজিদ নাওয়াজ তিন হাজার ৩৯ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। স্থানীয় সময় ভোর ৫টায় লন্ডনের কেমডেন ভোট গণনা কেন্দ্রের রিটার্নিং অফিসার টিউলিপকে এমপি হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

২৩ বছর ধরে লেবার পার্টির দখলে থাকা হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনটি ধরে রাখা টিউলিপের জন্য একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। কারণ কনজারভেটিভ পার্টি এবার এই আসনটিকে ‘টার্গেট সিট’ বানিয়েছিল।

লন্ডনে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ১০টি আসনের শীর্ষে ছিল হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন। এ কারণে আসনটির প্রতি গণমাধ্যমসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দৃষ্টি ছিল ভিন্ন, সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের চ্যালেঞ্জও ছিল অন্য রকম।

হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনে ১৯৯২ সাল থেকে লেবার পার্টির এমপি ছিলেন অস্কার জয়ী অভিনেত্রী গ্লেন্ডা জ্যাকসন। গত নির্বাচনে তিনি মাত্র ৪২ ভোটের ব্যবধানে জিতেছিলেন। এই আসনে গতবার প্রধান তিনটি দলের মধ্যে লেবার পার্টি ৩২ দশমিক ৮ শতাংশ, কনজারভেটিভ পার্টি ৩২ দশমিক ৭ শতাংশ এবং লিবারেল ডেমোক্র্যাটস পার্টি ৩১ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পায়। যে কারণে আসনটিকে বলা হচ্ছিল ‘ত্রিমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ’ আসন।

Tulips 01গ্লেন্ডা জ্যাকসন অবসর নেওয়ার ঘোষণা দিলে লেবার পার্টির স্থানীয় সদস্যদের ভোটে এ আসনে এমপি পদে লড়াইয়ের মনোনয়ন পান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার মেয়ে টিউলিপ। এবারই প্রথম এমপি পদে নির্বাচন করলেন তিনি। প্রথমবারেই পেলেন জয়।

ফল ঘোষণার সময় গণনা কেন্দ্রে টিউলিপের মা শেখ রেহানা, ভাই রেজোয়ান সিদ্দিক ববি, বোন রুপন্থী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক, যুগ্ম সম্পাদক ও টিউলিপের অন্যতম প্রধান নির্বাচনী ক্যাম্পেইনার আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, রাজনীতিক জামাল খানসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

টিউলিপ ১৫ বছর বয়স থেকে হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নে বসবাস করছেন। এই এলাকার স্কুলে পড়েছেন তিনি। কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ৮ মে ২০১৫।

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:০৪ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ০৮ মে ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com