বিরল বন্ধুত্বঃ ধর্ম যেখানে বাঁধা নয়

সোমবার, ০১ আগস্ট ২০১৬

বিরল বন্ধুত্বঃ ধর্ম যেখানে বাঁধা নয়

Inter Nationalধর্মের ভেদাভেদ ভুলে ভারতের এক হিন্দু নারীকে বাঁচাতে উদ্যোগ নিয়েছেন দেশটির এক মুসলিম নারী। ওই নারীর জন্য নিজের কিডনি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দেশটির উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের ফতেপুর জেলার বাসিন্দা শামসাদ বেগম।

স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে একাই বাবার বাড়িতে থাকতেন ৪০ বছর বয়সী শামসাদ বেগম। তাঁর ছোট বোন থাকতেন মহারাষ্ট্রের পুনে শহরে। সেখানেই ছোট বোনের হিন্দু বান্ধবী আরতির রাণির সঙ্গে শামসাদ বেগমের পরিচয় হয়। ছোট বোনের বান্ধবীকেও সে ছোট বোনের মত দেখে  । ৩৮ বছর বয়সী আরতি রাণি  দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। এক বছর ধরে কিডনি সমস্যা প্রকট হয়ে ওঠে তাঁর। কিডনি পরিবর্তন করা ছাড়া কার্যত আরতির সুস্থ হওয়ার আর কোনো রাস্তা ছিল না। তবে কিডনি কেনার মতো আর্থিক সামর্থ্য ছিল না আরতির।


আরতির কষ্ট দেখে প্রাণ কেঁদে ওঠে শামসাদ বেগমের। বান্ধবীর আরতির পাশে দাঁড়াতে উত্তরপ্রদেশের  ফতেপুর জেলা থেকে মহারাষ্ট্রের পুনেতে ছুটে যান তিনি।

সেখানে গিয়ে স্বতঃপ্রণোদিতভাবে তিনি নিজের রক্ত পরীক্ষা করান। রক্ত পরীক্ষার পর তিনি জানতে পারেন আরতির রক্তের সঙ্গে তাঁর রক্তের গ্রুপের মিল আছে। এরপর নিজের একটি কিডনি আরতিকে দান করার সিদ্ধান্ত নেন শামসাদ বেগম।

এরই মধ্যে আরতি ও শামসাদ বেগমের শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন করেছেন চিকিৎসকরা। শামসাদ বেগম ফতেপুরে ফিরে গিয়ে তাঁর একটি কিডনিদানের ইচ্ছা জানিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য দপ্তরে যাবতীয় কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। সরকারি অনুমোদনের পর আরতির শরীরে শামসাদ বেগমের কিডনি প্রতিস্থাপন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / আগস্ট ০১, ২০১৬

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০১ আগস্ট ২০১৬

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com