চট্টগ্রামে বাসার ভেতর ‘জঙ্গি আস্তানার’ সন্ধান লাভ

শনিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

চট্টগ্রামে বাসার ভেতর ‘জঙ্গি আস্তানার’ সন্ধান লাভ

 

চট্টগ্রাম: হাটহাজারীতে মা্দ্রাসা, বাঁশখালীতে খামারের আড়ালে জঙ্গি আস্তানার পর এবার নগরীর হালিশহর থানার গোল্ডেন কমপ্লেক্স আবাসিক এলাকার একটি ভবনে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব। বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির সরঞ্জাম, ৭৬টি শক্তিশালী তাজাবোমা, গুলি জঙ্গি প্রশিক্ষণের জুতা এবং পোশাকসহ চারজনকে আটক করেছে র‍্যাব -৭। এদের মধ্যে একজন নারিও রয়েছেন।


র‍্যাবের দাবি, দেশবিরোধী নাশকতা করার জন্য দীর্ঘদিন ধরে এই আস্তানায় বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম মজুদ করে রাখা হয়েছিল।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে গোল্ডেন আবাসিক এলাকার ১ নম্বর সড়কের গোলাম মাওলা লেনের ১/১৯ নম্বর ভিয়া ম্যানশনের ২য় তলা থেকে এসব উদ্ধার করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক ব্যক্তির মালিকানাধীন পাঁচতলা এই ভবনটিতে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ভাড়া নিয়ে বসবাস করছিলেন ফয়জুল হক ও তার পরিবার।

আটক হওয়া চারজন হলেন- কক্সবাজারের পেকুয়ার মো.ফয়জুল হক (৩০) ও রহিমা আক্তার (২১), বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জের মো. আব্দুল হাই (৩৬), এবং জাহেদ নামে একজন। প্রথম তিনজনের বিরুদ্ধে জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগ পেয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হলেও জাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে র‍্যাব। এদের মধ্যে ফয়জুল ও রহিমা ভাইবোন।

র‍্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজির আহমেদ বেলা সাড়ে ১২টায় ঘটনাস্থলে এক সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান।

Ctg-photo-213র‍্যাব সূত্র জানায়, উদ্ধার হওয়া বোমা ও সরঞ্জামের মধ্যে রয়েছে- ১২ বোর শট গানের গুলি ১২টি, বিভিন্ন ধরণের বোমা ২২টি, বোমা তৈরির স্টিল বোতল ১২৩৫ পিস, বোমা তৈরির খালি পাইপ ২৪ পিস, অ্যালুমেনিয়াম ডাস্ট ৫৯ কেজি, সোডিয়াম ১৭ কেজি ৬শ গ্রাম, অ্যামোনিয়াম নাইট্রিক জিআর ৩ কেজি ৮শ গ্রাম, সালফার (২৫০ গ্রাম) এক কেজি, অ্যামোনিয়াম নাইট্রিক ৬ কেজি, ম্যাগনেসিয়াম পাউডার ৫শ গ্রাম ওজনের এক পিস, নাইট্রিক পিউরিপাইড ৫শ গ্রাম ওজনের ১৩ পিস, সালফার ১০ কেজি, গান পাউডার ৫শ গ্রাম, পটাশিয়াম ক্লোরাইড ৩৫ কেজি।

এছাড়া বিভিন্ন ধরনের স্টিল বল ৫ কেজি, নাইট্রোবেনজেনি ৫ লিটার, ইডি সালফাইড ৪ কেজি, পিইটিএন ৫শ গ্রাম, সোডিয়াম এভাইড ১শ গ্রাম, চেয়ার কোল ২ কেজি, লাইফ স্মোক এমকে-৮ অরেঞ্জ ৪ পিস, বেয়নট স্মোক সিগন্যাল অরেঞ্জ-এইচ ডব্লিউ এক পিস, বেয়নট স্মোক সিগন্যাল অরেঞ্জ-কেএমএ-৪৩ দুই পিস, ফ্লোটিং অরেঞ্জ স্মোক সিগন্যাল-আইএফএফ-২০৩ দুই পিস, বেয়নট স্মোক সিগ্যানাল অরেঞ্জ (চায়না) দুই পিস, স্মোক সিগন্যাল অরেঞ্জ ৪ এম আই এন ১১ পিস, বেয়নট স্মোক সিগ্যানাল কে-৩৫ দুই পিস, বেয়নট স্মোক সিগন্যাল জেএইচথ্রি দুই পিস, উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন রকেট প্যারাস্যুট প্লেয়ার দুই পিস, মাস্ক এক পিস, গ্লাভস এক পিস, সিরিঞ্জ এক পিস, ব্লেন্ডার ম্যাশিন এক পিস, জঙ্গল বুট ৮৬ জোড়া, পিটি সু ৯৭ জোড়া, নাইলন বেল্ট ৯৬ জোড়া, মোজা ১৮৫ জোড়া।

Ctg-photo-117র‍্যাব -৭ এর সহকারী পরিচালক এএসপি শাহেদা সুলতানা এ প্রতিনিধিকে বলেন, ‘হাটহাজারীতে আটক জঙ্গিদের তথ্যের ভিত্তিতে বাঁশখালীর লটমণি পাহাড়ে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়া যায়। সেখান থেকে আটক পাঁচজনের তথ্যের ভিত্তিতে হালিশহরের এই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোকদ্রব্য ও বোমাসহ তিনজনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে ফয়জুল হক জঙ্গিদের প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করছিলেন। আটকদের বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত অন্যদেরও আটক করা যাবে।’

উল্লেখ্য এরআগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি হাটহাজারীর আলিপুর মাদরাসা থেকে জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগে ১২ জনকে আটক করা হয়েছিল। এসময় তাদের কাছ থেকে ৬২ জিবি জঙ্গি প্রশিক্ষণের ভিডিও উদ্ধার করা হয়েছিল।

তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ২১ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে বাঁশখালীর দুর্গম লটমণি পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও জঙ্গি প্রশিক্ষণ সরঞ্জামসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব।

 

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:১৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com