বাবার প্রতি মেয়ের ভালোবাসাঃ

হাজার কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে বাবাকে নিয়ে এলো বাড়ি

রবিবার, ২৪ মে ২০২০

হাজার কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে বাবাকে নিয়ে এলো বাড়ি
সাইকেলে বাবা ও মেয়ে ছবিঃ সংগ্রহ

হাজার কিলোমিটারেরও বেশী  সাইকেল চালিয়ে আহত প্রবাসী-শ্রমিক বাবাকে সাইকেল চালিয়ে বাড়িতে ফিরিয়ে এলেন ভারতীয় এক কিশোরি । স্থানীয় মিডিয়া জানিয়েছে, জ্যোতি কুমারী নামের পনের বছরের এক কিশোরি তাঁর বাবা মোহন পাসওয়ানকে  সাইকেলে চড়িয়ে  দিল্লির নিকটবর্তী গুরুগাঁও শহর থেকে বিহারের উত্তর-পূর্ব রাজ্যে তাদের দরভাঙ্গা গ্রামে নিয়ে আসে। আট দিনে ১২,০০ কিলোমিটার রাস্তা পাড়ি দিয়ে ২০ মে তারা বাড়ি পৌঁছে।

 


মোহন পাসওয়ান উত্তর ভারতের গুরুগাঁও এ রিকশাচালক হিসাবে কাজ করেছিলেন এক দুর্ঘটনা ঘটেছিল এবং পায়ে গুরুতর আহত হন। পনের বছর বয়সী জ্যোতি কুমারী মার্চ মাসে তাকে দেখতে গিয়েছিলেন তবে করোনাভাইরাস লকডাউনে সে বাবার কাছেই আটকা পড়ে । এক সময়ে  তার বাবার সঞ্চিত সমস্ত  অর্থ  শেষ হয়ে আসে  । লকডাউনে আটকা পড়া তাদের মত অনেকে পায়ে হেঁটে যে যার বাড়িতে চলে গেলেও  তাঁরা পারছিল না। কারণ কিছুদিন আগে তার বাবা এক দূর্ঘটনায় পায়ে আঘাত পায় । হাঁটার মত সক্ষমতা ছিল না তার বাবার ।  ঐ আঘাতের খবর জেনেই বাবাকে দেখতে গিয়েছিল নিজ বাড়ি বিহারে থেকে দিল্লি ।

ক্রমেই তাদের দিন খারাপ থেকে খারাপের দিকে যেতে থাকে । সবচেয়ে বেশী খারাপ অবস্থা হয়ে দাঁড়ায়  বাড়ি  ভাড়া দিতে না পারায়।  এক সময়ে বাড়িওয়ালার ভাড়া না দিতে পারায় উচ্ছেদের মুখোমুখিও হয়।  জ্যোতি কুমারি  সিদ্ধান্ত নেয় বাবাকে নিয়ে সে পূর্ব ভারতের দরভাঙ্গায় তাদের বাড়িতে চলে যাবে  । যাবে বাড়ি কিন্তু ক্যামনে ?  লকডাইনে যানবাহান সব বন্ধ । বাবার প্রতি গভীর ভালোবাসার মেয়ে থেমে থাকার পাত্রী সে নয় ।  তখন সে প্রতিবশীর কাছ থেকে অল্প টাকায় একটি পুরনো বাই-সাইকেল কিনে  । বাবাকে সাইকেলের পিছনে বসিয়ে শুরু হয় বাবা-মেয়ের অদম্য যাত্রা।

পরিবারের সাথে জ্যোতি কুমারী

পরিবারের সাথে জ্যোতি কুমারী

নির্ভীক কিশোর প্রতিদিন ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে এমন জায়গায় থামে যেখানে উদার লোকেরা খাবার এবং জল সরবরাহ করে। মাঝেমধ্যে  ট্রাক চালকরাও তাদের প্রতি করুণা দেখাত ।  এই ভাবে জ্যোতি আট দিন সাইকেল চালিয়ে ১২,০০ কিলোমিটার রাস্তা পাড়ি দিয়ে ২০ মে ঘরে পৌঁছে।

এই কৃতিত্বে স্থানীয় সরকারী কর্মকর্তারা তাকে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে সহায়তা করতে সম্মত হয়েছেন এবং ভারতীয় সাইকেলিং ফেডারেশন তাকে প্রশিক্ষণের প্রস্তাব দিয়েছে। জ্যোতি এমনকি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভানকা ট্রাম্পকে মুগ্ধ করেছেন। “ধৈর্য ও ভালবাসার সুন্দর কীর্তিটি ভারতীয় জনগণ এবং সাইকেলিং ফেডারেশনের কল্পনাশক্তিকে আকড়ে নিয়েছে,” তিনি টুইট করেছেন। তার সে সাইকেল চালনার ভিডিও ক্লিপ দেখতে এখানে ক্লিক করুনঃ

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ মে ২৩, ২০২০

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৯:৪৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২৪ মে ২০২০

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com