বাগেরহাটে বেওয়ারিশ শিশু উদ্ধারঃ দত্তক নিতে আগ্রহী অনেকে

মঙ্গলবার, ০৮ জুন ২০২১

বাগেরহাটে বেওয়ারিশ শিশু উদ্ধারঃ দত্তক নিতে আগ্রহী অনেকে
উদ্ধারকৃত শিশু [ ছবিঃ ফেসবুক ]

গতকাল  ৭ জুন সোমবার (বাংলাদেশ) ভোর ৪টায় বাগেরহাট সদর উপজেলার চিতলী-বৈটপুর গ্রামের সাইদুলের চায়ের দোকান থেকে নবজাতক একটি বেওয়ারিশ শিশু কন্যা উদ্ধার করেছে স্থানীয় পুলিশ । দোকানের পেছনে থাকা ক্যারাম বোর্ডের উপর  কে বা কারা এই  শিশু কন্যাটি রেখে পালিয়ে গেছে বলে ধারনা করেছে পুলিশসহ স্থানীয়রা । এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শিশুটি বাগেরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।  শিশুটিকে দত্তক নিতে বাগেরহাট জেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডের কাছে আবেদন করেছেন একাধিক নিঃসন্তান দম্পতি।

বরিউল আলমের টাইম লাইন থেকে

বাগেরহাটের মোল্লাহাট গাংনী সরকারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল আলম লিখেছেন, বাগেরহাটে ফেলে যাওয়া এই নবজাতক সোনামণি কে আইনি প্রক্রিয়ায় আমি নিতে চাই।
আমাদের শ্রদ্ধেয় ডিসি স্যারের প্রতি আমার আকুল আবেদন, এই বাচ্চাটিকে বেবি হোমে না দিয়ে আমাকে দিলে চিরকৃতজ্ঞ থাকবো । ‘


এছাড়াও আরো অনেক নিঃসন্তান দম্পতি  শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানা যায় ।

চিতলী-বৈটপুর গ্রামের শরীফা বেগম বলেন, গভীর রাতে কান্নার শব্দ পেয়ে আমাদের ঘুম ভেঙে যায়। ঘুম থেকে উঠে খুঁজতে থাকি, কোথায় বাচ্চা কাঁদছে। একপর্যায়ে সাইদুল ইসলামের চায়ের দোকানের পেছনে রাখা ক্যারাম বোর্ডের উপরে নবজাতককে দেখতে পাই। তখনই আমি ত্রিপল নাইনে ফোন দিয়ে পুলিশকে জানাই।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মো. আছাদুজ্জামান বলেন, রোববার (৬ জুন) রাত ৩টার দিকে ত্রিপল নাইনের একটি ফোনের মাধ্যমে আমরা খবর পাই চিতলী বৈটপুর এলাকায় চায়ের দোকানের ক্যারাম বোর্ডের উপর একটি নবজাতক পড়ে আছে। আমরা তাৎক্ষণি ঘটনাস্থল থেকে নবজাতকটিকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বাগেরহাট সদর হাসপাতালের শিশু বিষয়ক কনসালটেন্ট ডা. খান শিহান মাহমুদ বলেন, ভর্তি হওয়া মেয়ে নবজাতকটির বয়স আনুমানিক দুই দিন হবে। সে এখন সুস্থ রয়েছে, টেনে খেতে পারছে। দুপুরে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, সমাজসেবা অধিদপ্তর, বাগেরহাটের উপ-পরিচালক মো. রফিকুল ইসলামসহ সরকারি কর্মকর্তারা নবজাতককে দেখতে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে যান। আমরা শিশুটিকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়েছি।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান বলেন, নবজাতকটি আপতত পুলিশ প্রহরায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকবে। পরবর্তীতে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে বেবিহোমে স্থানান্তর করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ইতোমধ্যে নবজাতককে দত্তক নেওয়ার জন্য বেশকিছু আবেদন আমাদের কাছে এসেছে। শিশু কল্যাণ বোর্ডের সভায় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আবেদনগুলো যাচাই-বাছাই করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৮ জুন ২০২১

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com