বাগেরহাটে খানজাহান (রহঃ) মাজারের মেলার আজ সমাপনী

শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০১৫

বাগেরহাটে খানজাহান (রহঃ) মাজারের মেলার আজ সমাপনী

 

বাগেরহাটঃ বাগেরহাটের ঐতিহাসিক হযরত খানজাহান (রহ.) মাজারে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিন দিনব্যাপী মেলা শুরু হয়েছে। প্রতি বছর চৈত্র মাসের পূর্ণিমা তিথিতে এই মেলা শুরু হয়। চলে তিনদিন ধরে। আজ  শনিবার এই মেলা শেষ হবে।


গত প্রায় ছয়শ বছর ধরে হযরত খানজাহান (রহ.) মাজারে এই মেলা চলে আসছে। হযরত খানজাহানের ভক্তরা দুর-দুরান্ত থেকে মাজার এলাকার দীঘিরপাড়সহ বিস্তৃর্ণ স্থান জুড়ে যে যার মত করে তাদের আসর বসিয়েছে। ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সকল ভক্তবৃন্দের পদচারণায় মাজার প্রাঙ্গন মিলন মেলায় পরিণত হয়ে উঠেছে। দেশ বিদেশের হাজার হাজার ভক্ত পূর্ণার্থী এখানে জড়ো হয়ে তাদের মনোবাসনা পূরণের আশায় এখানে মিলিত হয়ে থাকেন। মেলা উপলক্ষে মাজার এলাকায় দোকানীরা নানা রকমের পসরা সাজিয়ে বসেছেন।

মেলায় আসা বরগুনার ষাটউর্দ্ধো কদম আলী ফকির বলেন, ছোট বেলা থেকে প্রতি বছর এই পূর্ণিমা তিথিতে এখানে আসি। এখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা বাউল শিল্পীরা গানের আসর জমান। মাজারের দীঘিরপাড়ে সারারাত ধরে এখানে গান বাজনা চলে। আমি এই গান শুনতে চলে আসি।

মাজারে খুলনার দাকোপ থেকে আসা অবনিশ মন্ডল বলেন, প্রতি বছর চৈত্র মাসের পূর্ণিমা তিথির জন্য অপেক্ষায় থাকি। এই দিনটি আসলে আমি সব কাজ ফেলে এখানে চলে আসি। গত দশ বছর ধরে এখানে আসছি। এখানে নানা ধর্মের মানুষের একটা মিলন মেলায় পরিণত হয়। ধর্মাধর্ম ভুলে আমরা যদি সবাই এইভাবে থাকতে পারতাম তাহলে দেশের হিংসা হানাহানি বন্ধ হয়ে যেত।

মেলার অন্যতম আয়োজক ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আক্তারুজ্জামান বাচ্চু বলেন, প্রায় ছয়শ বছর ধরে এখানে মেলা চলে আসছে। এই মেলাটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক অপূর্ব মিলন মেলা। এখানে বাউল সাধকরা দীঘিরপাড়ে বসে সারারাত লালনগীতি, পল্লীগীতি, ভাটিয়ালী, মারফতি গান পরিবেশন করে। হারিয়ে যাওয়া এসব গান শুনলে মনটা আনন্দে ভরে ওঠে। দেশ বিদেশের হাজার হাজার মানুষ এই মেলায় আসেন। আগামী শনিবার মেলা শেষ হবে।

মাজারের প্রধান খাদেম শের আলী ফকির বলেন, প্রতি বছরের পূর্ণিমা তিথিতে এই মেলা শুরু হয়। তিনদিন ধরে এই মেলা চলে। সব ধর্মের মানুষ একটু পূর্ণলাভের আশায় হযরত খানজাহানের এই মেলায় ছুটে আসেন।

 

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ০৪ এপ্রিল ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:১৫ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com