প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামনে দেওয়া প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিবাদ

শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০১৯

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামনে দেওয়া প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিবাদ

ওয়াশিংটনঃ হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সামনে দেওয়া প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে ডিএমভি কমিউনিটি ও মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। ২২ জুলাই হোয়াইট হাউসের সামনে তাঁরা প্রতিবাদ জানান।

প্রতিবাদ সমাবেশ শুরু হয় ২২ হজুলাই বেলা ১১টায়। এতে উপস্থিত ছিলেন মেট্রো ওয়াশিংটন আওযামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নুরুল আমিন, সহসভাপতি মোহাম্মদ আযম আজাদ ও সিব্বির আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এম নবী বাকী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, যুবলীগ সভাপতি রাবিউল ইসলাম রাজু, সহসভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাজ ও সাইফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, রিমন, আলমগীর, সেতু ও গ্রেটার ওয়াশিংটন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি করিম সালাউদ্দিন ও নুরুল আমিন।


বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড ও ব্যানার হাতে হোয়াইট হাউসের সামনে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। প্রিয়া সাহা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে যে নালিশ উপস্থাপন করেছেন, তা সঠিক নয়। বর্তমান সরকার সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছে। প্রিয়া সাহা দেশে অরাজকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে আমেরিকায় এসেছেন। তাঁর বক্তব্য সব শ্রেণি ও ধর্মের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি কেন এ ধরনের বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন, তা জানতে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে হোয়াইট হাউসের প্রেসসচিব স্টেফানি গ্রিসামের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর আয়োজিত ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিতে যাওয়া বিভিন্ন দেশের অন্তত ২৭ জন প্রতিনিধিকে ১৭ জুলাই তাঁর ওভাল অফিসে ডেকে পাঠান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের প্রিয়া সাহা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। সেখানে ৩ কোটি ৭০ লাখ (৩৭ মিলিয়ন) হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান উধাও হয়ে গেছেন। এখনো সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ (১৮ মিলিয়ন) সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী রয়েছে। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে চাই না। আমি আমার বাড়ি হারিয়েছি। তারা আমার ঘরবাড়ি আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে। জমি কেড়ে নিয়েছে। এর কোনো বিচার এখনো পাইনি।’

প্রিয়ার  ঐ বক্তব্যে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়ায় প্রিয়া সাহাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ। শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে তাঁকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / জুলাই ২৬ , ২০১৯

সংশ্লিষ্ট সংবাদ
প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেবেনা সরকার

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com