পরিস্থিতি বুঝে খালেদার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা … হাসিনা

সোমবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

পরিস্থিতি বুঝে খালেদার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা … হাসিনা

 

ঢাকা: আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘দেশের বর্তমান পরিস্থিতি আরো পর্যবেক্ষণ করে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে সেটা এখন নয়, আরো কিছুদিন অপেক্ষা করে।’


রোববার রাতে সাড়ে ৮টায় সংসদ ভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের এক ঘণ্টাব্যাপী চলা এ বৈঠক এমন কঠোর মনোভাব পোষণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠক সূত্র জানা গেছে, খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো কিছুদিন আগে মারা গেছেন। এখন খালেদা জিয়ার প্রতি মানুষের আবেগ কাজ করছে। তাই এখন কিছু না করে পরিস্থিতি বুঝে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া গ্রহণ করা হবে এমন মনোভাব পোষণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘নাশকতা ও মানুষ হত্যার জন্য খালেদা জিয়ার কপালে অনেক দুঃখ আছে। চাইলে তার বিরুদ্ধে অনেক কিছুই করা যায়। তবে এ মুহূর্তে কিছুই করতে চাই না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সন্ত্রাস-নাশকতা দমনে সরকারের কাজের পাশাপাশি দলকেও কাজ করতে হবে।’

বৈঠকে আবার সংসদ সদস্যদেরকে নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকার সন্ত্রাসবিরোধী প্রতিরোধ কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেক পাড়া-মহল্লা, মসজিদ-মন্দিরে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতা-সহিংসতার বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার পাশাপাশি প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।’

বৈঠকে সমাজকল্যাণমন্ত্রী মহসিন আলী বলেন, ‘পরীক্ষার প্রথম দিন পিছিয়ে দেয়া ঠিক হয়নি।’ মন্ত্রীর এমন বক্তব্য উপস্থিত নেতারা সমর্থন করেন।

তার এমন মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিএনপি জোটের হরতালের কারণে প্রথম দিনের পরীক্ষা চলাকালে ছোট কোনো ঘটনা ঘটলেও তখন সরকারের বিরুদ্ধে একটি সমালোচনার সুযোগ সৃষ্টি হতো। দেশের জনগণও বলতো, একদিন পরীক্ষা পেছালে এমন কী ক্ষতি হতো?’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই পরীক্ষা সরকারের জন্য কোনো চ্যালেঞ্জ নয়। এটিকে সরকার চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছেও না। পরীক্ষা পরীক্ষার মতোই চলবে। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থেই পরীক্ষা একদিন পেছানো হয়েছে।’ তবে দলীয় এমপিদের এই পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে এবং শিক্ষাথীদের নির্বিঘ্নে পরীক্ষা নিশ্চিত করতে জনগণকে সম্পৃক্ত করে পদক্ষেপ গ্রহণ করেত নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের স্বাভাবিক দায়িত্বের অংশ হিসেবেই এই পরীক্ষাকে এগিয়ে নেয়ার বিষয়ে সহযোগিতা করবে।’

বিএরপির আন্দোলনে সারাদেশের জ্বালাও-পোড়াওয়ে নিহতদের ছবি দিয়ে ব্যানার পোস্টার এবং এর আগে এ সংক্রান্ত প্রকাশিত লিফলেট জনগণের মধ্যে বেশি করে বিলির নির্দেশও দেন শেখ হাসিনা।

চলমান সহিংসতা মোকাবেলায় জনসম্পৃক্তা বৃদ্ধির প্রয়োজনে দুই সপ্তাহ সংসদ অধিবেশন মুলতবি করার প্রস্তাব করেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যরা এ প্রস্তাব নাকচ করে দেন। তবে আগামী বুধবারের পর থেকে সংসদ অধিবেশন কয়েকদিনের জন্য মুলতবি করা হতে পারে বলে সূত্র দাবি করে।

বাংলামেইল২৪ডটকম/ এআর/ এস

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:১২ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com