নিউইয়র্ক সিটির স্কুল সমুহে ঈদের ছুটি অনুমোদন (ভিডিও)

বৃহস্পতিবার, ০৫ মার্চ ২০১৫

নিউইয়র্ক সিটির স্কুল সমুহে ঈদের ছুটি অনুমোদন (ভিডিও)

 

eidবর্ণমালা নিউজ, নিউইয়র্কঃ  নিউইয়র্ক সিটির পাবলিক স্কুলে দুই ঈদে সাধারন ছুটি অনুমোদন করেছেন মেয়র বিল ব্লাজিও। গত বুধবার মেয়র বিল ডি ব্লাজিও এ ঘোষনা দেয়ার পর সিটির মুসলমানদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। নিউইয়র্কের মুসলমানরা বিষয়টিকে তাদের রাজনৈতিক বিজয় হিসাবে দেখছেন।


গত নির্বাচনের আগে ডেমোক্রেট দলের মেয়র প্রার্থী বিল ডি ব্লাজিও নির্বাচনে জয়ী হলে দুই ঈদে স্কুল ছুটি ঘোষনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।আর তাতে বাংলাদেশী সহ অন্যান্য মুসলমান অভিবাসীরা গোষ্ঠী বিল ব্লাজিওর পক্ষে ব্যাপক প্রচারনায় যোগ দেন। গত বুধবার মেয়র ডি ব্লাজিওর ঘোষনার পর সিটির স্কুল চ্যান্সেলর ক্যারম্যান ফারিনা জানান, চলতি বছর থেকেই দুই ঈদের ছুটি কার্যকর হবে। এ ঘোষনার ফলে এখন থেকে নিউইয়র্ক সিটির পাবলিক স্কুলগুলোতে দুই ঈদে সাধারণ ছুটি থাকবে। সিটির পাবলিক স্কুলগুলোতে আগে থেকেই ইহুদি এবং খৃস্টান ধর্মালম্বীদের উৎসবে ছুটি পালিত হয়ে আসছিল। নিউইয়র্কে মুসলমান অভিবাসীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় ঈদে স্কুল ছুটি রাখার দাবী ক্রমশ: জোরালো হয়ে উঠছিল। কিন্তু এতে সাড়া না দিয়ে সাবেক মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ ধর্মীয় উৎসবের নামে স্কুল বন্ধ রাখার বিরোধিতা করে আসছিলেন। তারপরও দাবী আদায়ে নিউইয়র্কে মুসলমান অভিবাসীদের সামাজিক সংগঠনগুলো ঐক্যবদ্ধ হয়ে দুই ঈদে স্কুলে ছুটির দাবী জানাতে থাকে।

মেয়র ডি ব্লাজিও ঈদে স্কুল ছুটির ঘোষনা দিয়ে বলেন, সিদ্ধান্তের কারনটি সহজেই বোধগম্য। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক সিটিতে মুসলমান আভিবাসীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। নগরীর উন্নয়নে মুসলমানদের অবদানের স্বীকৃতির জন্যই ঈদের উৎসবে স্কুল ছুটি রাখা হবে বলে তিনি বলেন।

২০০৮ সালে কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জরীপ থেকে জানা যায়, নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলের ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী মুসলমান ধর্মালম্বী। এই মুসলমান শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৯৫ ভাগই পাবলিক স্কুলে পড়ে। আর নিউইয়র্কে ৬ লাখ থেকে ১০ লক্ষ মুসলমান বাস করে বলে ধারনা করা হয়।

নিউইয়র্কের স্কুল চ্যান্সেলর ক্যারম্যান ফারিনা তাঁর তাৎক্ষনিক বক্তব্যে বলেছেন, দুই ঈদে ছুটি ঘোষনার ফলে শিক্ষার্থীরা ধর্মীয় সহনশীলতা, ভিন্ন ধর্ম এবং সংস্কৃতি সম্পর্কে জানার ও শেখার অবকাশ পাবে। আরব আমেরিকান এসোসিয়েশনের পরিচালক লিন্ডা সারসোর তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, এতোদিন ধর্মীয় উৎসব পালন এবং শিক্ষা গ্রহনের জন্য স্কুলে যাওয়ার টানাপোড়নে ঈদের দিনগুলোতে থাকতে হতো আমাদের ছেলে মেয়েদের। তিনি বলেন,আমেরিকার মুসলমানদের জন্য ঘোষনাটি ঐতিহাসিক।এখানে বসবাসরত মুসলমানরা আমেরিকাকে নিয়ে যেমন গর্বিত, তেমনি মেয়র ব্লাজিওর ঘোষনার মধ্য দিয়ে আমেরিকার মুসলমানদেরও গর্বিত করা হয়েছে বলে লিন্ডা সারসোর তাঁর প্রতিক্রিয়া উল্লেখ করেন।

নিউইয়র্কে পাবলিক স্কুলে ঈদের ছুটি ঘোষনা করা হলেও প্রাইভেট স্কুলগুলো চলে তাদের নিজস্ব নিয়মে। কোন কোন প্রাইভেট স্কুল নগর কতৃপক্ষের সিদ্ধান্তের অনুসরন করে থাকে। যদিও অধিকাংশ মুসলমান অভিবাসেিদর সন্তানরা নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থী। নিউইয়র্কের আগে নিউজার্সী, ম্যাসাচুসেটস, ভারমন্ট সহ মুসলমান অভিবাসীবহুল অনেক নগরীতে ঈদ উপলক্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চালু রয়েছে। ভিডিও ক্লিপ দেখতে নিন্মের লিঙ্কে চাপ দিনঃ

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৮:৪৮ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৫ মার্চ ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com