নিউইয়র্কে বইমেলায় লেযা়র লেভিনঃ আমার ইচ্ছা ছিলো জয়বাংলা চলচ্চিত্র করার

মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০১৫

নিউইয়র্কে বইমেলায় লেযা়র লেভিনঃ আমার ইচ্ছা ছিলো জয়বাংলা চলচ্চিত্র করার

 

নিউইয়র্ক থেকে এনাঃ বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু লেযা়র লেভিন । যিনি মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশে চলে গিযে়ছিলেন। তার ক্যামেরায় বন্দি করেছিলেন দুলর্ব অনেক চিত্র। যে চিত্র দিযে় পরে প্রযা়ত চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ তৈরি করেছিলেন মুক্তির গান। তারেক মাসুদ এবং ক্যাথরিন মাসুদ লেযা়র লেভিনের কাছ থেকেই সেই দুর্বল চিত্রগুলো সংগ্রহ করেছিলেন। লেভিন নিজেও জানালেন সেই কথা। তাকে ২৪তম বই মেলা এবং আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসবের প্রথম দিনেই সম্মাননা জানানো হয়। সম্মাননা অনুষ্ঠানে লেযা়র লেভিন আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন, আমি এই চিত্র দিযে় জয় বাংলা চলচ্চিত্র করার চিন্তা করেছিলাম কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমার তা হযে় ওঠেনি। তারেক মাসুদ এবং ক্যাথরিন মাসুদ আমার কাছে আসলে আমি তাদের তা নিঃশর্তে তুলে দেই ।


তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ইজ এ ভেরি বিউটিফুল কান্ট্রি বাংলাদেশের মানুষও বিউটিফুল এবং বাংলাদেশের সংস্কৃতিও বিউটিফুল । তিনি আরো বলেন, আমি যখন চিত্র গ্রহণ করছিলাম, সেই সময় আমাকে আমেরিকান স্পাই বলে গ্রেফতার করা হয়, আমেরিকায় পাঠিযে় দেযা় হয়। লেযা়র লেভিনবে সম্মানসূচক উত্তরীয় পরিযে় দেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কন্স্যুলেটের কন্সাল জেনারেল শামীম আহসান। এই পর্বটি পরিচালনা করেন হাসান ফেরদৌস এবং লেভিনের বাডি় যাওযা় এবং চিত্রগুলো তুলে দেযা়র ঘটনা বর্ণনা করেন সৈয়দ টিপু সুলতান।

Ny book fair 1গত ২২ মে সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের একটি স্কুল অডিটোরিযা়মে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন আযো়জিত তিন দিনব্যাপী বই মেলা এবং আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসবের উদ্বোধন করেন অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সাযী়দ। এর পর পরই ২৪টি মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিযে় বই মেলা ও আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসবের উদ্বাধনী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সাঈদ, বই মেলার আহবায়ক ভযে়স অব আমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান রোকেযা় হায়দার, বিশিষ্ট নাট্যকার রামেন্দু মজুমদার, বিশ্বভারতীর পরিচালক রাম কুমার মুখোপাধ্যায়, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালযে়র সচিব নব বিক্রম ত্রিপুরা, আমিনুল ইসলাম, আহমেদ মাজহার, হুমাযু়ন কবীর ঢালি, সাংবাদিক আহমেদ মুসা, বিশিষ্ট ছডা়কার লুফুৎর রহমান রিটন, বীরু প্রকাশ পাল, শহীদ হাসান, হাসান ফেরদৌস, শামীম আহসান, লেখিকা নাজমুন নেসা পেযা়রি, বিশিষ্ট লেখিকা শারমিন আহমেদ, সম্মুদাস গুপ্ত, নজরুল ইসলাম, ড. নূরন্নবী, সাংবাদিক মনজুর আহমদ, লেখক ফেরদৌস সাজেদীন প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সাযী়দ বলেন, নিউইয়র্কে ২ যুগ বাংলা বই মেলা হচ্ছে এবং আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব হচ্ছে এটা কম কথা নয়। আগামি বছর ২৫ বছর হবে। রজত জয়ন্তীর আরো বড় অনুষ্ঠান হবে। বাঙালি উৎসবে মেতে উঠবে। আমি মনে করি এই উৎসবের ধারা অব্যাহত থাকবে। আন্তর্জাতিক এই উৎসব সবার প্রাণের উৎসবে পরিণত হবে। তিনি বলেন, উৎসব না হলে জীবন চাঙ্গা হয় না। আগামী তিনটি দিন আপনাদের আন্দন্দের মধ্যে দিযে় কাটুক এই প্রত্যাশা করি। আহবাযি়কা রোকেযা় হায়দার বই মেলায় আগত সকল অতিথিকে ধন্যবাদ জানিযে় বলেন, আগামী তিন দিন আমরা উৎসবে মেতে থাকবো। আপনারা যা বলবেন আমরা তা শুনবো, আর আমরা যা বলবো তা আপনারা শুনবেন। তিনি বলেন, বই মেলা এবং আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি এবং বিশ্ব বাঙালির প্রাণের উৎসবে পরিণত হযে়ছে।

আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক পর্ব শুরু হয় সঙ্গীত পরিষদের উদ্বোধনী সঙ্গীত এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতি শিল্পীদের নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে। জজ হ্যারিসনের সঙ্গীত দিযে়ই নতুন প্রজন্মের শিল্পী দ্বিতীয় ফেরদৌস, দীপাঞ্জলী ভৌমিক, বাসমা, শ্রুতিকনা দাস ও সৌরভ সরকারের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় কনসার্ট ফর বাংলাদেশ। আরো সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী মেহরুন আহমেদ, মারিযা় ও স্থানীয় শিল্পী পার্থ সারথি মুখোপাধ্যায়।

পুরো অনুষ্ঠানের সার্বিক দাযি়ত্বে ছিলেন মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের বিশ্বজিৎ সাহা। উপস্থাপনায় ছিলেন ডানা ইসলাম, ক্লারা রোজারিও ও সেমন্তী ওযা়হেদ। বই মেলা ও আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা বাংলাদেশী অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বই মেলার প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। এই শোভা যাত্রায় অতিথিসহ সর্বস্তরের প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করেন।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ২৬ মে ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৮:৫৫ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com