দারিদ্র-মুক্ত জাপান সৃষ্টির লক্ষ্যে গ্রামীণ ব্যাংকের মডেলে “গ্রামীণ নিপ্পন” চালু

শুক্রবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

দারিদ্র-মুক্ত জাপান সৃষ্টির লক্ষ্যে গ্রামীণ ব্যাংকের মডেলে “গ্রামীণ নিপ্পন” চালু

টোকিও: ২০১৮ জাপানে অর্থনৈতিক বৈষম্য কমিয়ে আনার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হলো “গ্রামীণ নিপ্পন।” এর প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট মাসাহিরো কান ইতোপূর্বে বিশ্ব ব্যাংকে জাপানের নির্বাহী পরিচালক এবং আফ্রিকান উন্নয়ন ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। মেইজি গাকুইন বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপক জাপান সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ে নিযুক্ত ছিলেন। বাংলাদেশে নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস কর্তৃক উদ্ভাবিত ক্ষুদ্রঋণ মডেল ব্যবহার করে গ্রামীণ নিপ্পন জাপানে দারিদ্র ও অর্থনৈতিক অসমতার সমস্যা মোকাবেলায় কাজ করবে।

গ্রামীণ নিপ্পন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে একটি ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে যা আর্থিকভাবে অসচ্ছল মানুষদেরকে বিনা জামানতে  অল্প সুদে ঋণ সরবরাহ করবে। প্রতিষ্ঠানটি তাদেরকে ব্যবসা তৈরী ও বড় করতে এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সহায়তা করবে। গ্রামীণ নিপ্পন সৃষ্টি হয়েছে গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে। সামাজিক ব্যবসার সাতটি মূলনীতির ভিত্তিতে একটি আদর্শ সমাজ প্রতিষ্ঠাই এর লক্ষ্য।


প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস

প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস

দারিদ্র পীড়িত মানুষদের জন্য একটি ক্ষুদ্রঋণ সামাজিক অবকাঠামো গড়ে তোলার মাধ্যমে একটি দারিদ্র-মুক্ত, শক্তিশালী সমাজ গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাবে প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়াও গ্রামীণ নিপ্পন নতুন নতুন ক্ষুদ্র ব্যবসা তৈরীর মাধ্যমে মানুষের চাকরি খোঁজার মানসিকতাকে চাকরি সৃষ্টির মানসিকতায় রূপান্তরিত করতে কাজ করবে।

গ্রামীণ নিপ্পন উদ্বোধন উপলক্ষ্যে এক বার্তায় প্রফেসর ইউনূস মাসাহিরো কান ও প্রতিষ্ঠানটিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ও  আশা প্রকাশ করেছেন যে, গ্রামীণ নিপ্পন দারিদ্র-মুক্ত জাপান সৃষ্টিতে তার এই মহান যাত্রায় দেশটির জনগণ, কর্পোরেট সমাজ, ব্যাংক, সরকার ও অলাভজনক প্রতিষ্ঠানগুলোর সহায়তা পাবে।

গ্রামীণ নিপ্পনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সংবাদ প্রচার করতে গিয়ে জাপানের জনপ্রিয় পত্রিকা “দি মাইনিচি” বিশেষভাবে তুলে ধরেছে কীভাবে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের গ্রামীণ ব্যাংকের মডেলে কাজ করবে, কীভাবে ক্ষুদ্রঋণের মাধ্যমে জাপানী সমাজ থেকে দারিদ্র দুর করতে ও সমাজের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাজ করবে এবং প্রফেসর ইউনূসের দর্শন ও রূপকল্প কীভাবে প্রতিষ্ঠানটি ও তার কর্মীদের কর্ম-প্রেরণা ও পথ-প্রদর্শক হিসেবে কাজ করবে।

জাপানী সংবাদ মাধ্যম মাইনিচ এ মূল সংবাদটি পেতে নিন্মের লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ দি মাইনিচ

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / সেপ্টেম্বর ২৮ , ২০১৮

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:১২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com