টেক্সাসে হামলার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ওহাইয়ো রাজ্যে আবারো বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৯

রবিবার, ০৪ আগস্ট ২০১৯

টেক্সাসে হামলার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে ওহাইয়ো রাজ্যে আবারো বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৯

ওহাইয়োঃ টেক্সাসের এল পাসো’তে গুলির ঘটনায় ২০ জন নিহত হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই আবারও  ওহাইয়োর ডেটনে বন্দুকধারীর গুলিতে নয় জন নিহত এবং ১৬ জন আহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে সেখানকার পুলিশ।

স্থানীয় সময় রাত ১ টায় শহরের ওরেগন অঞ্চলের একটি বারের বাইরে গোলাগুলির ঘটনার খবর পাওয়া যায়।


স্থানীয়ভাবে প্রকাশিত খবরে বলা হচ্ছে, আহতদের আশেপাশের বেশ কয়েকটি হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

বন্দুকধারীও মারা গেছেন বলে জানানো হচ্ছে।

dayton-shooting-cop-mo_hpMain_20190804-052658_16x9_608সহকারী পুলিশ প্রধান ম্যাট কার্পার সাংবাদিকদের জানান যে ঐ সময় টহলরত পুলিশ কর্মকর্তারা বন্দুকধারীকে হত্যা করতে সক্ষম হন।

“আমাদের বাহিনীর সদস্যরা এধরণের পরিস্থিতি সামলানোর জন্য প্রশিক্ষিত। আমরা ভাগ্যবান যে সেসময় টহলরত পুলিশ কাছাকাছি ছিল।”

ডেটন পুলিশের পক্ষ থেকে এক টুইটে বলা হয়, “গুলি শুরু হওয়ার পরপরই আমাদের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছান এবং দ্রুত ঐ ঘটনার সমাপ্তি ঘটাতে সক্ষম হন।”

ঐ টুইটে কর্তৃপক্ষ প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছেও ঘটনা উন্মোচনে সাহায্যের আবেদন করেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা ভিডিওতে গুলির শব্দ শোনা যায় এবং দলে দলে মানুষকে রাস্তা দিয়ে দৌড়াতে দেখা যায়।

ধারণা করা হচ্ছে, ‘ই ফিফথ স্ট্রিট’এর নেড পেপার্স বারের বাইরে গুলির ঘটনাটি ঘটে।

dublin-pub-dayton-wkef-mo-20190804_hpMain_16x9_608জো উইলিয়ামস নামের এক ব্যক্তি বিবিসিকে জানান যে, গুলি চলার সময় তিনি কাছাকাছি একটি র‍্যাপ শো’তে ছিলেন এবং হঠাৎ তাদের বের হয়ে যেতে বলা হয়।

“আমি ভীষণ চমকে যাই। আমাদেরকে ওরেগন ডিস্ট্রিক্ট থেকে দূরে থাকতে বলা হয়।”

“আমি যখন ঘটনাস্থলের পাশ দিয়ে যাই তখন অনেক পুলিশ এবং অ্যাম্বুলেন্স দেখি।”

নেড পেপার্সের ইন্সটাগ্রাম পেইজে এবং পার্শ্ববর্তী একটি বারের ফেসবুক পেইজে জানানো হয় যে বারের কর্মীরা নিরাপদে আছেন।

ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যেই ‘ই ফিফথ স্ট্রিট’ এবং ওয়েইন অ্যাভিনিউতে জরুরি সেবাদানকারী সংস্থারা জড়ো হয়।

ঘটনাস্থলে এফবিআই এর কর্মকর্তাদের উপস্থিতিও লক্ষ্য করা গেছে।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / আগাষ্ট ০৪, ২০১৯

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:০৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৪ আগস্ট ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com