টরন্টোতে জিয়া মেমোরিয়াল ডে উদযাপিত

বুধবার, ০৩ জুন ২০১৫

টরন্টোতে জিয়া মেমোরিয়াল ডে উদযাপিত

টরন্টঃ  টরন্টোতে জিয়া মেমোরিয়াল ডে উদ্যাপন উপলক্ষে ৯ ডজ রোডস্থ লিজিয়ন হলে রেজাউল করিম তালুকদার এর সভাপতিত্বে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “জিয়াউর রহমান ইজ দ্য গ্রেটেষ্ট ফাইটার”। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ক্যাপ্টেন (অবঃ) এম শহিদুল ইসলাম সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ ককাস চেয়ারম্যান ম্যাথিও কেলওয়ে এম.পি বলেন প্রেসিডেন্ট জিয়া নিজে অস্ত্র হাতে মুক্তিযুদ্ধ করেছিলেন এবং বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর উন্নয়ন ও উৎপাদনের রাজনিতির সূচনা করতে গিয়ে কোদাল হাতে তুলে নিয়েছিলেন। তার সততা সাহস, দেশপ্রেম এবং দূরদর্শিতা শুধু দেশেই নয় বহির্বিশ্বে বাংলাদেশর ভাবমূর্তি উজ্জল করেছিল। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন শিল্পী বেবী নাজনীন বলেন, প্রেসিডেন্ট জিয়া ছিলেন একজন দার্শনিক। জিয়াউর রহমান- এর মধ্যে যে রাজনৈতিক দর্শন বিদ্যমান ছিল সেটি অনুধাবন করতে পারলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম সহজেই সততা ও নিষ্টার সাথে দেশ গঠনে ভুমিকা রাখতে পারবে। জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষনা দিকদ্রান্ত জাতিকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়তে এবং নয় মাসের সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে বিজয় অর্জন করতে অনুপ্রানিত করেছিল। জাতীয়তাবাদী রাজনীতির প্রবক্তা জিয়াকে দেশী-বিদেশী চক্রান্তকারী গোষ্টী ভয় পেত এবং তাদের ইন্ধনেই জিয়াকে হত্যা করা হয়। আজও সেই অপশক্তি সক্রিয় রয়েছে এবং তারা শহীদ জিয়ার গড়া বিএনপিকে শুধু ধ্বংসই নয়, দেশের গনতন্ত্রকে ও হত্যার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। একাত্তরের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে জিয়ার সৈনিকদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঐ অপশক্তিকে মোকাবেলা করতে হবে বলে তিনি অভিমত প্রকাশ করেন।

আলোচনায় অংশ নেন জাতীয়তাবাদী পেশাজীবি পরিষদের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড, এম সায়েদুর রহমান, জিয়া পরিষদ কারাডার সভাপতি নবী হোসেন, চার্টাড একাউন্ট্যান্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াহিদ, কর্নেল (অবঃ) কায়সার। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. এনামুল্লাহ, কানাডা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রকৌশলী রফিকুল হক, মালয়েশিয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক ডাঃ সিরাজুল হক চৌধুরী, টরন্টো ইউনিভার্সিটির শিক্ষক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নূরুল ইসলাম। সেমিনারের এক পর্যাযে “জিয়া মেমোরিয়াল ডে-২০১৫ এর কমিটি” কর্তৃক প্রকাশিত অত্যন্ত উন্নতমানের একটি স্মরনিকার মোড়ক উন্মোচন করেন, মঞ্চে উপবিষ্ট অতিথিবৃন্দ। স্মরনিকার প্রকাশক এজাজ আহমেদ খান প্রকাশনার ইতিবৃত্ত উপস্থিত সুধীবৃন্দের সম্মুখে উপস্থাপন করেন এবং স্মরনিকার সম্পাদক মুজিবর রহমান সম্পাদনা পরিষদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সভাপতির বক্তব্যে বিশিষ্ট লেখক ও সিনিয়র সাংবাদিক রেজাউল করিম তালুকদার বলেন, শহীদ জিয়ার আদর্শকে লালন করতে পারলে জাতীয়তাবাদী শক্তি পূনরুজ্জীবিত হবে।


সেমিনারের দ্বিতীয় পর্ব এজাজ আহমেদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এ পর্বে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বিশিষ্ট রাজনীতিক বেবী নাজনীন জাতীয়বাদী শক্তিকে শক্তিশালী করার সাক্ষ্য উপস্থিত সুধীবৃন্দকে অনুপ্রানিত করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জিয়া পরিষদ কানাডার সভাপতি নবী হোসেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. এম সায়েদুর রহমান, চার্টার্ড একাউন্ট্যান্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল ওয়াহিদ আজম এবং সমাজ সেবক নূরুল ইসলাম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ওয়াহিদ মুরাদ, মিজানুর রহমান চৌধুরী, সোহেল আহমেদ মশেরুল হোসেন রিপন, রেহেনা আখতার, জাকিয়া আলম, জাকিয়া আখতার, আনোয়ার আল-মাসুদ, ইবাদ চৌধুরী, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব টরন্টোর সভাপতি খশবুর রশীদ চৌধুরী, এবাদ চৌধুরী, শাহাব উদ্দিন, মিজানুল খান দিপু, ইমরুল হোসেন, প্রমূখ। দোয়া পরিচালনা করেন ক্যাপঃ শহিদুল ইসলাম এবং অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শামসুল মুক্তাদির।

শনিবারের চিঠি / আটলন্টা/ ০৩ জুন ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:৪১ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৩ জুন ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com