বিতর্কিত ৫ জানুয়ারি পালন করল জর্জিয়া আ’লীগ ও বিএনপি

বৃহস্পতিবার, ০৮ জানুয়ারি ২০১৫

বিতর্কিত ৫ জানুয়ারি পালন করল জর্জিয়া আ’লীগ ও বিএনপি

Am bnp Animation

শনিবার রিপোর্টঃ  জানুয়ারি ৫, ২০১৪  বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে বাংলাদেশে একটি বিতর্কিত  নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে শতকরা ৫ জন ভোটার নির্বাচনে উপস্থিত হয়। প্রধান বিরোধিদল বিএনপি এ  নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার   ৩০০ আসনের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বর্তমান আওয়ামী সরকারের অধিকাংশই প্রতিনিধিই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়। ৫ জানুয়ারির সেই দিবসটিকে বাংলাদেশে এবং প্রবাসে আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি পৃথক পৃথক মূল্যায়নে  উদযাপন  করেছে। আওয়ামী লীগ এ দিবসটিকে ‘ গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’ এবং বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা ও কালো দিবস’ আখ্যাদিয়ে দিবসটি উদযাপন করেছে।


 তারই ধারাবাহিকাতায় জর্জিয়া আওয়ামী লীগ গত ৫ জানুয়ারি সোমবার যথাক্রমে সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ রহমানের উপস্থপনায় বিকেল ৫টায় স্থানীয় একটি হোটেল কক্ষে ‘ গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’ নামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ডাঃ মুহাম্মদ আলী মানিক,  জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হুমায়ুন কবির কাউসার, সাংগঠনিক সম্পাদক রমেশ সাহা ,আইন বিষয়ক সম্পাদক মোসলেম উদ্দিন মৃধা ,যুগ্ম সম্পাদক এ,এইচ রাসেল্‌, কার্যকরি পরিষের সদস্য ও সাবেক সভাপতি মহিদুল মাওলা দিলু, কোষাধক্ষ সোহরাব উদ্দিন আহমেদ, উপদেষ্টা মশিউর রহমান চৌধুরি, সহসভাপতি মোস্তাক আহমেদ, যুব বিষয়ক সম্পাদক মিনহাজুল ইসলাম বাদল, সদস্য আব্দুল হক ও তার স্ত্রী  হাফিজা বেগম প্রমুখ ।এ ছাড়াও আরো কয়েক জনের নাম স্থানীয় দুটি ওয়েবে প্রকাশ করা হয়েছে আদৌ তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন,  ২০১৪ সালের সালের এই দিনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ  সংবিধান মোতাবেক  একটি সফল নির্বাচন সম্পন্ন করে বাংলাদেশে যে সাংবিধানিক এবং গণতান্ত্রিক ধারা রক্ষা করে সে জন্য সন্তোষ প্রকাশ করে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানায় জর্জিয়া আওয়ামী লীগ ।

জর্জিয়া বিএনপির আয়োজনে একই দিনে সন্ধ্যে ৬টায় স্থানীয় এক রেষ্টুরন্টে জর্জিয়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু নাসের কাজেমির  সভাপতিত্বে  ও সাধারণ সম্পাদক মামুন শরিফের উপস্থাপনায় ‘গণতন্ত্র হত্যা ও কালো দিবস’ নামে একটি প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যথাক্রমে, মোহাম্মদ আব্দুল জাব্বার, আরিফুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার মাহবুব আহমেদ,ডিউক খান, জর্জিয়া বিএনপির উপদেষ্টা মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন, এম এম রহমান আজাদ, এম এ খান লোদী, মোহাম্মদ আলী খান সজল প্রমুখ।    প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, আজ ০৫ জানুয়ারী। বাংলাদেশ তথা পৃথিবীর ইতিহাসে এক কলংকময় দিন। যে গণতন্তের জন্য লক্ষ লক্ষ জনতা জীবন দিয়েছিল স্বাধীনতা… যুদ্ধে। সেই গনতান্তিক প্রক্রিয়াকে ভুলন্ঠিত করে গত বছর০৫ জানুয়ারী ভোটারবিহীন একটি নির্বাচনের আয়োজন করেছিল আজকের ক্ষসতাসীনরা। এরই নাম আওয়ামী গণতন্ত্র। যে প্রজন্ম ৭৫ পূর্ববর্তী  আ’লীগের শাসন দেখার সৌভাগ্য হয়নি, আজকের সেই নতুন প্রজন্মের কাছে বর্তমান সরকারের শাসন ব্যবস্থা চিত্র দেখে পেছনের ইতিহাসের পাতা মেলানো খুবই সহজ হবে। তবে দূর্ভাগ্য ইতিহাস থেকে আমরা কেউ শিক্ষা নেই না। এছাড়াও অনুষ্ঠানে  বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে পুলিশ ব্যারিকেড ও নয়াপল্টনস্থ কার্যালয় থেকে পুলিশ সরিয়ে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। একইসঙ্গে দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভির অবিলম্বে মুক্তি দাবি করা হয়।

 

 

 

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:২০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৮ জানুয়ারি ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com