জর্জিয়ায় ঈদুল আযহার প্রধান জামাত আল ফারুকে অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ২৩ আগস্ট ২০১৮

জর্জিয়ায় ঈদুল আযহার প্রধান জামাত আল ফারুকে অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ গত ২১ আগষ্ট মঙ্গলবার  সারা যুক্তরাষ্ট্রের ন্যায় জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যেও মুসলমান সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা  যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় একযোগে পালিত হয়। জর্জিয়ায় ঈদুল আযহার  প্রধান জামাত অনুষ্ঠি হয় জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের কেন্দ্রীয় মসজিদ আল-ফারুক মসজিদ অব আটলান্টায়। সেখানে পর পর দু’টি জামাত অনুষ্ঠিত হয় যথাক্রমে সকাল সাড়ে আটটা ও  সকাল সোয়া ন’টায়  ।

ইনফেনিটি ইনার্জি দৌলুত ছবিঃ শনিবারের চিঠি

ইনফেনিটি ইনার্জি দৌলুত ছবিঃ শনিবারের চিঠি

মসজিদ ওমর বিন আব্দুল আজিজ, গুনেইট ইসলামিক সার্কেল এবং মসজিদ দারুস সালামের তত্ত্বাবধানে জর্জিয়ায় সবচেয়ে বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয়  গুনেইট কাউন্টির ইনফেনিটি ইনার্জি দৌলুত জর্জিয়ায় । সকাল সাড়ে সাতটা ও সাড়ে আটটায়  পর দু’টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এখানে প্রায় ১০ হাজার মুসল্লি নামাযে অংশ গ্রহণ করে বলে একটি অসমর্থিত সুত্রে জানা যায় ।


এ ছাড়াও জর্জিয়া ইসলামিক সেন্টার লরেন্সভিলে দু’টি সকাল সাড়ে আটটায় ও সকাল সাড়ে ন’টা। আত্তাকোয়া মসজিদ ডোরাভিল সাড়ে আটটা ও সাড়ে ন’টায় দুটো জামাত অনুষ্ঠিত হয় ।

ইসলামিক সেন্টার অব নর্থ ফুলটন আলফারাটা সকাল আটটায় ও সকাল ন’টায় , ইবাদুর রহমান দাওয়াহ্ সেন্টার মেরিয়াটা সকাল ন’টায়,  আটলান্টা মসজিদ আল ইসলাম সকাল সাড়ে আটটায়, মসজিদ মুমিন সাড়ে আটটায়, মসজিদ আবু বকর বিউফোর্ড হাইওয়ে আটলান্টায় সকাল সাড়ে আটটায় । এছাড়াও বিভিন্ন মসজিদ ও কমুনিটি সেন্টারে ঈদুল আযহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়  বলে জানা গেছে।

জামাতে নারিরাও অংশ গ্রহণ করে ছবিঃ শনিবারের চিঠি

জামাতে মহিলারাও অংশ গ্রহণ করে ছবিঃ শনিবারের চিঠি

নিউইয়র্ক , মিশিগান এবং প্যানসালভেনিয়ায় সরকারি স্কুল সমুহ  ঈদের ছুটি উপভোগ করলেও  জর্জিয়াসহ অন্যান্য রাজ্যে ঈদ উপলক্ষে সরকারি ছুটি না থাকলেও কোন জামাতই মুসল্লিদের উপস্থতির কমতি ছিলনা । প্রায় প্রত্যেক স্থানেই একাধিক জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। নামাযে মহিলারাও অংশ গ্রহণ করে।

বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান,  আরব, ননআরব  এশিয়া, ইউরোপ,আফ্রিকাসহ জর্জিয়ায় বসবাসরত বিশ্বের সর্ব স্থরের ধর্ম প্রাণ মুসলমানরা দেশ জাতি , ভাষা, বর্ণ ভুলে এক কাতারে পবিত্র ঈদুল আযহার নামায আদায় করে ।

ঈদ জামাতে দুনিয়ার সুখ, শান্তি স্বস্থি আর আখেরাতের মুক্তি কামনা করে মহান আল্লার দরবারে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

এখানে বাসা বাড়িতে পশু-পাখি জবেহ করার রীতি না থাকায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা নামাজের পর পরই ছুটছে বিভিন্ন সোলাট হাউস বা কসাই খানায় সেখানেই তারা আল্লার সন্তষ্টি লাভে গরু, ছাগল , মেষ ,ভেড়া বিভিন্ন পশু কোরবানি দেয়  ।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / আগষ্ট ২৩,২০১৮

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ২:৫৩ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৩ আগস্ট ২০১৮

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com