চোখ বুজে রায় শুনলেন সোবহান

বুধবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

চোখ বুজে রায় শুনলেন সোবহান

 

ঢাকাঃ রায় ঘোষণার পুরো সময়টা ট্রাইব্যুনালের কাঠগড়ায় চুপচাপ বসে ছিলেন ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামি জামায়াত নেতা আবদুস সোবহান। রায় ঘোষণার পর তিনি কোনো প্রতিক্রিয়াও প্রকাশ করেননি। তবে বিচারপতি যখন দণ্ড ঘোষণা করেন তখন জামায়াতের এই নেতাকে চোখ বুজে থাকতে দেখা গেছে।


বুধবার বেলা ১১টার দিকে ১৬৫ পৃষ্ঠার রায়ের সংক্ষিপ্তসার পড়া শুরু হয়। বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে রায়ের সংক্ষিপ্তসার পড়া শেষে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতের নায়েবে আমির মাওলানা আব্দুস সোবহানের রায় ঘোষণা করেন। রায়ের সংক্ষিপ্তসার পড়ার পুরো সময়টা আবদুস সোবহান কাঠগড়ায় চুপচাপ বসে থাকলেও রায় ঘোষণার সময় তিনি চোখ বন্ধ করে রাখেন। এসময় তিনি বেশ কয়েকবার চোখ খোলেন এবং বন্ধ করেন। রায় ঘোষণা শেষে কঠোর নিরাপত্তা দিয়ে ট্রাইব্যুনালের আসামি সেলে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।

এদিকে রায় ঘোষণার পর আবদুস সোবহান কোনো প্রতিক্রিয়া না জানালেও তার চতুর্থ ছেলে নেসার আহমেদ সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

বুধবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল-২ বেলা পৌনে ১২টার দিকে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির মুহাম্মদ আবদুস সোবহানের ফাঁসির রায় দেন।

ট্রাইব্যুনালে আব্দুস সোবহানের বিরুদ্ধে ১৬৫ পৃষ্ঠার এ রায় চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান নিজেই পড়ে শোনান।

সোবহানের বিরুদ্ধে আনা নয়টি অভিযোগের মধ্যে ১, ৪ ও ৬ নম্বর অভিযোগে সুবহানকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। তাকে ২ ও ৭ নম্বর অভিযোগে আমৃত্যু কারাদণ্ড এবং ৩ নম্বর অভিযোগে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। প্রমাণ না হওয়ায় ৫, ৮ ও ৯ নম্বর অভিযোগ থেকে তাকে খালাস দেওয়া হয়।

ট্রাইব্যুনালের রায়ে প্রসিকিউশন পক্ষ সন্তুষ্ট প্রকাশ করলেও এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা।

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:৩৩ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com