চলচ্চিত্র অধঃপতনের কারণ প্রেমহীনতা : টেলি সামাদ

শনিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০১৬

চলচ্চিত্র অধঃপতনের কারণ প্রেমহীনতা : টেলি সামাদ

বিনোদনবাংলাদেশের চলচ্চিত্রে শক্তিমান অভিনেতা টেলি সামাদ। এরই মধ্যে ছয়শর বেশি ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। এতদিন তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও এবার ব্যস্ত হচ্ছেন নাটক নিয়ে। জানালেন, নাটক নির্মাণ করছেন তিনি। মাঝে অবশ্য শারীরিক অসুস্থতার কারণে বড় পর্দায় নিয়মিত হতে পারেননি।

টেলি সামাদ বলেন, ‘একটা সময় ছিল, ঘুম থেকে উঠে এফডিসিতে আসার জন্য রেডি হতাম। সারা দিন আড্ডা দিয়ে রাতে বাসায় যেতাম। সারা দিনই আড্ডা হতো চলচ্চিত্র নিয়ে। এখান থেকেই ছবির গল্প তৈরি হতো। অভিনয়শিল্পী নির্বাচন হতো। আমরা পিকনিকের মতো করে শুটিং করতে যেতাম। দেখা যেত, অনেক ছবিতে আমি কাজ করছি না, কিন্তু সেটে চলে যেতাম আড্ডা দিতে। যে ভালোবাসা থেকে চলচ্চিত্র নির্মাণ হতো, এখন আর সেটা দেখা যায় না। প্রেম ছাড়া শিল্পচর্চা হয় না, শৈল্পিক ব্যবসা হয় না। আমাদের চলচ্চিত্রের এই অধঃপতনের মূল কারণ প্রেমহীনতা।’


একসময় বিএফডিসিতে নিয়মিত এলেও এখন আর তেমন আসেন না একসময়কার ডাকসাইটে অভিনেতা টেলি সামাদ। নতুন ছবিতেও কাজ করছেন না তিনি। কেন? জানতে চাইলে টেলি সামাদ বলেন, ‘বয়স হয়েছে, শরীর নিয়ম অনুযায়ী দুর্বল হয়েছে। যে কারণে চাইলেও আগের মতো যাতায়াত করতে পারি না। এর পরও একটু সুস্থ বোধ করলেই আড্ডা দিতে চলে আসি। জায়গাটা দেখলেই মনে হয় আগের দিনের কথা, অনেক ভালো লাগে। শরীর ভালো থাকলে প্রতিদিনই আসতাম। আর নতুন ছবিতে কাজ না করার কারণও এই একটাই। অনেকেই তাদের ছবিতে কাজের বিষয়ে বলে, কিন্তু শরীর দুর্বল, তাই সাহস পাই না। শুধু মনের জোর দিয়ে তো আর কাজ করা যায় না।’

ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ সম্পর্কে টেলি সামাদ বলেন, ‘এখনো সবকিছু গুছিয়ে উঠতে পারিনি। অল্প কিছুদিনের মধ্যে ঘোষণা দিয়ে কাজ শুরু করব। পুরাতনদের পাশাপাশি নতুনদের নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা আছে। আপনারা দোয়া করবেন, আমার শরীরটা যেন ভালো থাকে, তাহলেই কাজটি শুরু করতে পারব।’

১৯৪৫ সালের ৮ জানুয়ারি ঢাকার বিক্রমপুরে জন্মগ্রহণ করেন টেলি সামাদ। টিভি, চলচ্চিত্র ও মঞ্চে অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনা এবং গানের জগতেও তিনি কাজ করেছেন। ‘মনা পাগলা’ ছবির সংগীত পরিচালনা করেছেন তিনি। ১৯৭৩ সালে ‘কার বউ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় যাত্রা শুরু করেন। তবে তিনি দর্শকের কাছে পরিচিতি পান আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ ছবির মাধ্যমে। সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে বেড়ে ওঠা টেলি সামাদ পড়াশোনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায়।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা/ ৩০ জানুয়ারি ২০১৬

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০১৬

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com