গোপন মেঘধনু

শনিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২১

গোপন মেঘধনু
গোপন মেঘধনুঃ ফকির ইলিয়াস

পাথরের যতিচিহ্নগুলো সংরক্ষিত থাকে মানুষের পায়ে পায়ে,
যারা হেঁটে যায়, কিংবা যারা হাঁটতে পারে না, উভয় পক্ষই এক
গোপন মেঘধনু বুকে জমিয়ে লিখে নিজেদের যাপিত সংসারতন্ত্র,
লিখে সমুদ্রের জন্ম উৎসবের রোজনামচা, আঁকে পরখের নিয়ম।

কেউ কেউ আছে, জীবনে কিছুই লিখতে পারে না। লেখা তাদের
তপস্যা নয় ভেবেই তারা তাকিয়ে থাকে দীর্ঘক্ষণ হাওয়ার দিকে,
হত্যাকাণ্ডের দিকে, হরণের দিকে। সড়ক পার হতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ
হয় যে হরিণ-শাবক; তার জন্য শোক হাওয়া বইয়ে দিয়ে আকাশ
ভারমুক্ত হতে চায়। মানুষ দায়মুক্তির ধার না ধেরে মৎস্য শিকারে


মনোযোগ দেয়। ঢেউয়ের বিপরীতে মুদ্রা ঢেউ তুলে, কিনে বন-বাদাড়,
বালুমাটি, বিলাসিতার বন্ধ্যত্ব। প্রজনন ক্ষমতা হারিয়ে যে চাঁদ একদিন
মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছিল; সেই চাঁদের আলোও সরিয়ে নেয় তার
রেখা পুনরায়। গল্পটি এখানেই শেষ হতে পারত। কিন্তু শেষ হয় না।
দ্বাদশতম দর্শক হিসেবে সকল দৃশ্য ডানায় ধারণ করে একটি পাখি

উড়ে যেতে যেতে বলে;
দেশান্তরের মতো নির্মম অভিনয় জগতে আর কিছু নেই।

নিউইয়র্ক

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / জানুয়ারি ৩০, ২০২১

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১:০১ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২১

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com