লবণ নিয়ে লঙ্কাকান্ডঃ, বাজারে সংকট নেই

গুজবে সুবিধা নিল খুলনায় এক লবণ বিক্রেতা

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯

গুজবে সুবিধা  নিল খুলনায় এক  লবণ  বিক্রেতা
শহরে অনেক স্থানে লবণ কেনার হিরিক দেখা যায়

খুলনাঃ ৮০ টাকা দরে ১৬ কেজি লবণ বিক্রি করেছেন নগরীর ধর্মসভা ক্রস রোডের মদনি মসজিদের নিচতলার একটি ভ্যারাইটিজ স্টোরের মালিক।’ ফুল মার্কেট মোড়ের ‘আলো’ স্টোরের স্বত্বাধিকারী সমীর সাহা বলেন, ‘এই মাত্র পাঁচ কেজি করে লবণ কিনে গেলেন তিনজন। তারা বললেন, লবণের দাম নাকি দেড়শ’ কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে ঢাকাসহ বিভিন্ন শহরে। তবে আমি বেশি দামে বিক্রি করিনি।’

কয়লাঘাট প্রাইমারি স্কুলের সামনের আর বি স্টোরের সামনে ক্রেতাদের দীর্ঘ সময়ের দেখা গেছে সুদীর্ঘ লাইন। ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের মালিক মোঃ রেজাউল ইসলাম রফিক বলেন, “ক্রেতাদের বার-বার বলেছি লবনের কোন সংকট নেই। দামও বাড়বে না। তবুও দীর্ঘ লাইন। কি করবো বলেন?’


পরিবহন ধর্মঘটের ফলে গতকাল মঙ্গলবার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য-দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধির এমনি গুজবময় ছিল খুলনা। এ গুজবে অতিরিক্ত মূল্য হাকেন অতি মুনাফালোভী বিক্রেতারা। গুজবের সবচেয়ে বেশি নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে লবণের উপর। সর্বোচ্চ ৩৫ টাকা কেজি দরের লবণ গতকাল কোথাও কোথাও ৫০ থেকে একশ’ টাকা দরেও বিক্রির খবর পাওয়া যায়। লবণ উৎপাদক ও পরিবেশকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, খুলনা অঞ্চলে লবনের সংকট তো নেই বরং সামনে ভরা মৌসুম।

নগরীর বানরগাতি এলাকার বাসিন্দা ইখতিয়ার উদ্দিন জানান, ঢাকা থেকে তার আত্মীয়-স্বজনরা ফোন করে জানিয়েছেন লবণের কেজি দেড়শ’ টাকা হয়ে যাচ্ছে; এখনি যেনো তারাও বেশি করে লবণ কিনে রাখে। এ কথা শুনে বড় বাজারে ছুটেছেন তিনি। বললেন, “আমি নিজেও অনলাইনে নিউজ দেখলাম মৌলভিবাজারে লবনের কেজি দেড়শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কেউ বলছে, গুজব। গুজব মানছি, তবে এভাবেই তো পেঁয়াজের দাম তিনশ’ টাকা ছুঁয়েছিল। এজন্য ঝুঁকি নিতে চাই না বলেই কয় কেজি লবণ কিনে রাখছি।

খুলনার সর্ববৃহৎ মোকাম বড় বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জানান, বস্তা প্রতি ৭০ থেকে ৮০ টাকা বেশি দামে লবণ কিনতে হয়েছে। সে হিসেবে প্রতি প্যাকেটে এক টাকা দাম বাড়তে পারে। ‘লবণ’ গুজব শুধু শহরেই নয়, গ্রামাঞ্চলের খুচরা দোকানগুলোতে লবণ পড়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে রূপসা ও তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লবণ গুজব প্রতিরোধে প্রচার-প্রচারণা চালান। পাশাপাশি বাজার মনিটরিং করেন তারা।

কর্ণফুলী ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী রাসেল আহমেদ জাহিদ বলেন, ‘শুনেছি, লবনের দাম বাড়ছে। তবে এ তথ্যের কোন ভিত্তি নেই। সামনে লবনের মৌসুম, ফলে লবণের কোন ঘাটতি নেই, তাই লবনের মূল্যবৃদ্ধির কোন সম্ভাবনা নেই। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে হিড়িক পড়েছে তাছাড়া কিছুই নয়।’

তিতাস সল্ট’র পরিবেশক রঞ্জন কুমার বললেন, লবণের দাম এখনো বাড়েনি। তবে বাড়তে পারে এমন গুজব শোনা যাচ্ছে। লবনের মূল্য বৃদ্ধির কোন সম্ভাবনা নেই।

মধুমতি সল্ট ইন্ডাস্ট্রিজ’র মালিক আক্তার হোসেন ফিরোজ বলেন, খুলনাতে প্রচুর পরিমাণ লবণ মজুদ ও প্রস্তুত রয়েছে। তাই লবণের কোন সংকট দেখা দেবার আশঙ্কা নেই। অতিরিক্ত দামে ক্রেতাদের লবণ না কেনার পরামর্শও দেন তিনি।

রূপসার রাজাপুর সল্ট ইন্ডাস্ট্রিজ’র ম্যানেজার মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন, দেশের অন্য স্থানের খবর বলতে পারবো না তবে খুলনাতে লবনের মূল্য বৃদ্ধির সম্ভাবনা নেই।’ আলী বাবা লবণ নামের পণ্যটির প্রস্তুতকারক রাজাপুর সল্ট ইন্ডাস্ট্রিজ।

শনিবারের চিঠিআটলান্টা / ২০ নভেম্বর ,২০১৯

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১১:৩১ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com