খু’বির শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষিকাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ

শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১

খু’বির শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষিকাকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ
প্রতিকী ছবি

 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের সহকারী অধ্যাপক ছোটন দেবনাথের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। একই ডিসিপ্লিনের তারই এক সহকর্মী শিক্ষিকা এ অভিযোগ তুলেছেন। এর মধ্যে অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সহকারী ছাত্র বিষয়ক পরিচালককে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।


অভিযোগ পাওয়ার পর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধসংক্রান্ত অভিযোগ কমিটি ঘটনাটি তদন্ত শুরু করেছে। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে অভিযোগকারী শিক্ষিকার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। অপরপক্ষের শুনানিও খুব দ্রুত অনুষ্ঠিত হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

সূত্রটি আরো জানায়, অভিযোগসংক্রান্ত বেশ কিছু প্রমাণাদি এর মধ্যে কমিটির কাছে জমা দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি রাতে অভিযুক্ত শিক্ষকের ভাড়া বাসায় ওই নারী শিক্ষিকাকে ডেকে নিয়ে যৌন নির্যাতন করা হয়। পরে ৩০ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে ব্যাপারটির জন্য ছোটন দেবনাথ ওই শিক্ষিকার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এ সময় ওই নারী শিক্ষিকা ভবিষ্যতে কোনোরকম যোগাযোগ না করার শর্তে তাকে ক্ষমা করে দেন।

সম্প্রতি ঘটনাটি নিয়ে ছোটন দেবনাথ ওই শিক্ষিকার সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগ, কুৎসা রটানো ও হয়রানির চেষ্টা করলে ৪ সেপ্টেম্বর ওই শিক্ষিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধসংক্রান্ত অভিযোগ কমিটির কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করেন। অভিযোগ পাওয়ার পর শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বৈঠক করে ব্যাপারটি তদন্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধসংক্রান্ত অভিযোগ কমিটি।

এরপরে ওই কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী তদন্তের স্বার্থে ছোটন দেবনাথকে গত ৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক সব ধরনের কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে ববরখাস্তের চিঠি ইস্যু করা হয়।

অভিযোগকারী শিক্ষিকা বলেন, তদন্ত কমিটির প্রতি আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আশা করছি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমের ন্যায়বিচার পাব।

অভিযুক্ত শিক্ষক ছোটন দেবনাথ বলেন, ‘অভিযোগ সম্পর্কে আমাকে এখনও জানানো হয়নি। যেহেতু বিষয়টি তদন্তাধীন তাই এ ব্যাপারে আমার এখন মন্তব্য করা সমীচীন হবে না। তবে তদন্তে আমার পূর্ণ আস্থা আছে, এর মাধ্যমে আসল সত্য বের হয়ে আসবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি প্রফেসর মোসা. তাসলিমা খাতুন বলেন, ‘বিষয়টি এখনও তদন্তাধীন। তদন্তের স্বার্থে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। অভিযোগের সত্যতা মিললে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:৫৩ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com