খালি মাঠে আর গোল দিতে দেব না -ফখরুল

সোমবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮

খালি মাঠে আর গোল দিতে দেব না -ফখরুল

একাদশ নির্বাচনঠাকুরগাঁওঃ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ একতরফা নির্বাচন করতে চায়। কিন্তু এবার আর খালি মাঠে গোল দিতে দেব না। কারণ এবার জনগণ মাঠে আছে।

গতকাল রোববার দুপুর পৌনে ১২টায় ঠাকুরগাঁওয়ের উত্তর ঝাড়গাঁও মাদ্রাসা মাঠে এক নির্বাচনী জনসভায় তিনি এ কথা বলেন। জনসভায় আরও বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবদুল জব্বার, রুহিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনছারুল হক প্রমুখ।


ফখরুল বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এ নির্বাচনে জাতির ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হবে। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গঠিত সরকার ৫ বছর দেশ পরিচালনা করবে। সেই সময় সারের দাম কত থাকবে, ধানের দাম কত থাকবে, গমের দাম কত থাকবে, ভুট্টার দাম কত থাকবে, ছেলে-মেয়েরা চাকরি পাবে কিনা, শ্রমিকরা ন্যায্য মজুরি পাবে কিনা, দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা থাকবে কিনা এই সব কিছুই নির্ভর করবে সেই সরকারের নীতির ওপর। সেই জন্যই সবাইকে সুচিন্তিতভাবে ভোট দিতে হবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, এখন ক্ষমতায় বসে আছে আওয়ামী লীগ। তারা কিন্তু জনগণের দ্বারা নির্বাচিত সরকার নয়। ২০১৪ সালে কোনো নির্বাচন হয়নি, জনগণ ভোট দেয়নি। জোর করে ক্ষমতায় আছে তারা। যারা জোর করে ক্ষমতায় থাকে তারা মানুষের ভালো চায় না। এটা তো রাজতন্ত্র নয়, জমিদারি নেই; এটা প্রজাতন্ত্র। এ দেশের মালিক জনগণ। এর আগে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বলিতাপাড়া গ্রামে আয়োজিত এক পথসভায় তিনি বলেন, বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট জয়ী হয়ে সরকার গঠন করলে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য পাবেন। যারা বেকার রয়েছেন, কর্মসংস্থান না হওয়া পর্যন্ত তারা বেকার ভাতা পাবেন। মেয়েদের ডিগ্রি পর্যন্ত বিনা পয়সায় লেখাপড়ার সুযোগ দেয়া হবে। এ ছাড়া হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সম্প্রদায়রে জন্য আলাদা একটি মন্ত্রণালয় গঠন করা হবে।

ভোটারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, এই সরকারের পরিবর্তন একমাত্র আপনারাই করতে পারনে। আমরা শান্তি চাই, ভোটের মাধ্যমে পরিবর্তন চাই। কিন্তু আওয়ামী লীগ জনগণকে পুলিশ প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে মামলা করে আবারও ক্ষমতায় আসতে চায়। মামলা, হামলা ও ভয় দেখিয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না।

বিকাল ৫টায় শিবগঞ্জ মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত আরেক নির্বাচনী সভায় মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ কৃষকের বিনা মূল্যে সার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু দিয়েছে কি? দেয় নাই। তিনি বলেন, ‘আপনাদের অধিকার ভোট দেয়ার। এটা কেউ দান করেনি। আপনারা হক আদায় করবেন।’

এরপর সন্ধ্যায় তিনি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় যোগ দেন।

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা/ ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com