কোকোকে যুক্তরাজ্যে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ ঘোষণা

বুধবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৫

কোকোকে যুক্তরাজ্যে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ ঘোষণা

 

Koআরশাদুল বারী, যুক্তরাজ্যঃ জিয়া পরিবারের কনিষ্ঠ পুত্র আরাফাত রহমান কোকোকেমুক্তি ‘যোদ্ধা ও ‘শহীদ’ ঘোষণা করেছে যুক্তরাজ্য জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। গত শনিবার রাতে (১১ এপ্রিল) ইস্ট লন্ডনের ব্রিক লেনে একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত স্মরণসভায় এ ঘোষণা দেয়া হয়।


ঘোষণায় বলা হয়, গত ২৪ জানুয়ারি মালয়েশিয়ায় আরাফাত রহমান কোকো শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি এক-এগারোর অবৈধ জরুরি সরকার এবং আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকারের রোষানলে পড়ে নির্বাসনে ছিলেন। আপাত দৃষ্টিতে তার স্বাভাবিক মৃত্যু বলা হলেও তিনি আওয়ামী বর্বরতার শিকার হয়ে শাহাদতবরণ করেছেন।

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের পর জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে প্রচলিত আইনে হত্যাকারীদের বিচার সম্ভব বলে অভিমত দেন ব্রিটেন প্রবাসী রাজনীতিক ও আইনজীবী নেতারা।

কোকোকে ‘শহীদ’ ঘোষণার ব্যাখায় আইনজীবীরা বলেন, মানবকল্যাণে কিছু করার লক্ষ্যে উদ্যোগী হলে তাতে বাধাগ্রস্ত হওয়া এবং সুপরিকল্পিতভাবে হত্যার শিকার হলে তিনি ‘শহীদ’ হিসেবে পরিগণিত হবেন। জিয়া পরিবার বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে লড়াই করছে।

এক-এগারোর সরকার এই পরিবারকে ধ্বংসের লক্ষ্যে বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান ও আরাফাত রহমান কোকোকে গ্রেপ্তার করে ২০০৭ সালে অমানবিক নির্যাতন করেছে। এরপর আওয়ামী বাকশালীরা বাংলাদেশের অন্যসব সাধারণ মানুষের পাশাপাশি জিয়া পরিবারের সদস্যদের চিরতরে বিদায় করতে নানা ষড়যন্ত্র, মিথ্যা মামলা, জেল-জুলুম, হয়রানি অব্যাহত রাখে। সর্বশেষ আরাফাত রহমান কোকো দেশি ও বিদেশি কুচক্রিমহলের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে গত ২৪ জানুয়ারি ‘নিহত’ হন। একাত্তরের ‘শিশু মুক্তিযোদ্ধা’ কোকো নিঃসন্দেহে শাহাদতের মর্যাদা পাবেন বলে আইনজীবী নেতারা মনে করেন।

গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটাধিকার পুনরুদ্ধারে জিয়া পরিবারের কনিষ্ঠ পুত্র আরাফাত রহমান কোকো এবং চলমান আন্দোলনে নিহতদের শোককে শক্তিতে পরিণত করার আহ্বান জানান তারা।

যুক্তরাজ্য জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহ্বায়ক ব্যারিস্টার তারিক বিন আজিজের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস, প্রধান বক্তা যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়সর এম আহমেদ।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি হিসেবে সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল হামিদ চৌধুরী, সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ, তাজুল ইসলাম, উপদেষ্টা নসরুল্লাহ খান জুনায়েদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জসীম উদ্দীন সেলিম, দপ্তর সম্পাদক ড. এম মুজিবুর রহমান, আইনজীবী নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক নাসির আহমেদ শাহীন, যুবদল নেতা টিপু আহমেদ, ওলামা দলের মাওলানা শামীম প্রমুখ।

যৌথভাবে সভা পরিচালনা করেন যুক্তরাজ্য জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্য সচিব সলিসিটর বিপ্লব পোদ্দার ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার হামিদুল হক আফিন্দি লিটন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সহসভাপতি গোলাম রব্বানী, টাওয়ার হ্যামলেট এলাকা থেকে আসন্ন পার্লামেন্ট নির্বাচনে এমপি প্রার্থী রওশন আলী, আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট আলী আকবর কাদের, লিগাল অ্যাডভাইজার কুমকুম আকতার, ছাত্রনেতা আমিনুল ইসলাম, রাজীব আহমদ প্রমুখ।

স্মরণসভার শুরুতে আরাফাত রহমান কোকোর কর্মজীবনের ওপর নির্মিত একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শণ করা হয়। জিয়া পরিবারের কনিষ্ঠ পুত্র কোকোর স্মৃতি ধরে রাখতে আরাফাত রহমান কোকো ফাউন্ডেশন, ক্রিকেট ক্লাব, ট্রাস্ট ফান্ড এবং স্মৃতি স্কলারশিপ চালুর প্রস্তাব করেন বক্তারা।

 

শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ১৫ এপ্রিল ২০১৫

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৭:৩৯ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com