কারওরান বাজারে ৫হাজার কেজি মাছ জব্দঃ ৮ জনকে জরিমানা

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০১৫

কারওরান বাজারে ৫হাজার কেজি মাছ জব্দঃ ৮ জনকে জরিমানা

 

ঢাকা: রাজধানীর কারওরান বাজার মাছের আড়তে পাঁচ হাজার কেজি ভেজাল গলদা চিংড়ি মাছ ও উৎপাদন নিষিদ্ধ আফ্রিকান মাগুর মাছ জব্দ করে ধ্বংস করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। ভেজাল মাছ মজুদ রাখার অভিযোগে ৮ মাছ ব্যবসায়ীকে জরিমানাও করা হয়েছে।


বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে ৩ ঘণ্টাব্যাপী র‌্যাব-২ এই অভিযান চালিয়েছে বলে এই প্রতিনিধি জানতে পারে

র‌্যাব-২ এর অপারেশন অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মারুফ আহমেদ জানান, ৮ ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ৩ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে ৭ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে

সাজাপ্রাপ্ত মাছ ব্যবসায়ীরা হলেন, মো. শফিকুর রহমান (৩৩), মো. তরিকুল ইসলাম (২৬), মো. মেহেদী হাসান (২৪), মো. আল আমিন (১৫), বৃদাবাবুল (৫২), ফয়েজ উদ্দিন (৫০), আল আমিন (২৩) ও মো. আক্তারুজ্জামান (৩৪)।

র‌্যাব-২ কর্মকর্তা মারুফ আহমেদ জানান, কারওরান বাজারে অধিক মুনাফা লাভের আশায় চিংড়ির ওজন বৃদ্ধির জন্য জেলি, সাগু, পানি, পাউডার ও সাদা লোহা পুশ করছে। র‌্যাব-২ এর একটি বিশেষ টিম ছায়া তদন্তে নেমে অসাধু ব্যবসায়ীদের আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কারাদণ্ড প্রদান করেছে।

সাজাপ্রাপ্তরা র‌্যাবকে জানিয়েছেন, রমজান মাসে মাছের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ওই চাহিদা মেটানো এবং বেশী মুনাফা লাভের আশায় মুন্সীগঞ্জ, খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরিশাল থেকে এই মাছ সংগ্রহ করা হয়েছে।

র‌্যাব-২ কর্মকর্তা মারুফ আরও জানান, এই ভেজাল মাছ খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করলে শারীরিক বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সঙ্গে ব্যাপক স্বাস্থ্য ঝুঁকির আশঙ্কা রয়েছে।

তিনি আরও জানান, বিদেশি মাগুর যা আফ্রিকান মাগুর নামে খ্যাত। এ মাছটি রাক্ষুসে মাছ নামে পরিচিত। অন্যান্য প্রজাতির মাছের সঙ্গে একত্রে চাষ করলে এই মাছ অন্য প্রজাতির সব মাছ খেয়ে ফেলে। এতে করে দেশীয় মাছের উৎপাদন হ্রাস ও পরিবেশের ভারসম্যের উপর ব্যাপক প্রভাব পরে। এ কারণে মৎস্য অধিদপ্তর এই মাছের চাষ ও উৎপাদন নিষিদ্ধ করেছে। এ কারণে মাগুর মাছ জব্দ করার পাশাপাশি অসাধু ব্যবসায়ীদের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

শনিবারের চিঠি /আটলান্টা/ ১৮ জুন ২০১৫

 

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৫:২৫ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com