ওমিক্রন বাধার মুখে বিশ্বব্যাপী বর্ষবরণ যেখানে যেমন

শনিবার, ০১ জানুয়ারি ২০২২

ওমিক্রন বাধার মুখে বিশ্বব্যাপী বর্ষবরণ যেখানে যেমন
সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু ভবন বুর্জ খলিফায় বর্ষবরণের আলোকসজ্জা। ছবি : সংগৃহীত

২০২২ সাল প্রথম পা রাখে ওশেনিয়া মহাদেশের সামোয়ার দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ এবং কিরিবাতিতে। এর ঘণ্টাখানেক পরে নতুন বছরকে বরণ করে নিউজিল্যান্ড।

করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট ওমিক্রনের প্রকোপের মধ্যেই অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে হারবার ব্রিজ ও অপেরা হাউসকে কেন্দ্র করে বর্ষবরণে রংবেরঙের ছয় হাজার কেজি আলোকসজ্জা-দ্রব্য ব্যবহার করা হয়। তবে, ওমিক্রন বেড়ে যাওয়ার কারণে কড়াকড়ি আরোপিত অনেক শহরেই থেমে গেছে বা সীমিত পর্যায়ে করতে হয়েছে বর্ষবরণের উৎসব আয়োজন। ক্রিসমাসের ছুটির সময় বাতিল হয় হাজার হাজার ফ্লাইট, লোকজনকে পড়তে হয় ভ্রমণ বিড়ম্বনায়। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।


এবার পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে বছরের প্রথম প্রহর পৌঁছাতে ২৬ ঘণ্টা পেরিয়ে যায়।

দেশে দেশে বর্ষবরণ

সিডনি, অস্ট্রেলিয়া : করোনার সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি সত্ত্বেও সিডনিতে হাজার হাজার দর্শনার্থীর উপস্থিতিতে এবারের বর্ষবরণ হয়েছে। তবে, আগে থেকে সিট বুকিং দেওয়া না থাকলে বা টিকাপ্রাপ্ত না হলে সিটি সেন্টার এড়িয়ে যেতে বলেছেন আয়োজকেরা।

দক্ষিণ আফ্রিকা : দ্রুত সংক্রমণশীল করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট ওমিক্রন প্রথম শনাক্ত হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকায় মহামারির কারণে আরোপিত প্রায় দুই বছরের রাত্রিকালীন কারফিউ তুলে নেওয়া হয়েছে। ফলে দেশটির বর্ষবরণ নতুন মাত্রা পেয়েছে।

উত্তর কোরিয়া : ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষ্যে উত্তর কোরিয়ায় ছিল আতশবাজি ও আলোকসজ্জার আয়োজন। এর মধ্য দিয়ে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের ক্ষমতায় আরোহণের ১০ বছর পূর্ণ হলো।

দক্ষিণ কোরিয়া : ঘণ্টাধ্বনি বাজিয়ে বিশাল আয়োজনে প্রতি বছর রাজধানী সিউলে বর্ষবরণ আয়োজন হয়ে থাকে। এবার করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়্যান্ট ওমিক্রন বেড়ে যাওয়ায় তা বাতিল করা হয়েছে।

ভারত : এপ্রিল ও মে মাসে ভারতে করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে বেড়ে গিয়েছিল। তেমন ঢেউয়ের পুনরাবৃত্তির আশঙ্কায় এবার বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে গণজমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ভারতের বহু রাজ্য ও শহর। রাজধানী দিল্লিতে রাত ১০টার পর কারফিউ জারি করা হয়।

লন্ডন, যুক্তরাজ্য : বড় ধরনের আয়োজন বাতিল এবং সতর্কতার আহ্বানের মধ্য দিয়েই সীমিত পরিসরে ২০২২ সালকে বরণ করে নিলেন লন্ডনবাসী। সিটি স্কয়ারে ব্যারিকেড দেওয়া থাকলেও কিছু নাছোড়বান্দা অবশ্য স্বশরীরে হাজির হয়েছিলেন।

শুক্রবার রেকর্ডসংখ্যক মানুষের করোনা শনাক্ত হয় যুক্তরাজ্যে। এদিন দেশটিতে এক লাখ ৮৯ হাজার ৮৪৬ জনের শরীরে করোনা ধরা পড়ে।

ফ্রান্স : প্যারিসের আইফেল টাওয়ারে মনোহর আলোকসজ্জায় ২০২২ বরণ করা হয়। তবে, গত মাসেই বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে ফ্রান্সে পাবলিক কনসার্ট এবং আতশবাজির আয়োজন নিষিদ্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়।

ফ্রান্সে শুক্রবার দুই লাখ ৩২ হাজার ২০০ মানুষের করোনা ধরা পড়ে। টানা তৃতীয় দিন দুই লাখের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে দেশটিতে।

জার্মানি : রাজধানী বার্লিনে আলোকসজ্জায় ২০২২ বরণ করা হলেও জার্মানিজুড়ে এ উপলক্ষ্যে জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া আতশবাজির বেচাকেনায় নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।

নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র :  এ বছর নিউইয়র্কের টাইম স্কয়ারের বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে সীমিত পরিসরে মাত্র ১৫ হাজার মানুষকে হাজির হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। প্রতি বছর এই দিনে লাখো মানুষের পদচারণায় মুখর হয় টাইম স্কয়ার।

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে করোনা বাড়লেও বছরের প্রথম দিনে ওহায়ো এবং উটাহ অঙ্গরাজ্যের মধ্যকার রোজ প্যারেড এবং রোজ বউল কলেজ ফুটবল ম্যাচ হওয়ার কথা রয়েছে। গত বছরও ঐতিহ্যবাহী প্যারেডের এ আয়োজন স্থগিত রাখা হয়েছিল।

 

চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে উল্লাসে মাতেন কয়েকজন নারী। ছবি : সংগৃহীত

চীন : কড়া সতর্কতার মধ্য দিয়ে বর্ষবরণ করছে চীন। জি’আন শহরে লকডাউন চলছে। অন্যদিকে, প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়া শহর উহানেও বড় ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ রয়েছে।

জাপান : করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে গণজমায়েত নিষিদ্ধ রেখেছে জাপান। নতুন বছর উপলক্ষ্যে শনিবার দেওয়া বিশেষ বাণীতে জাপানের সম্রাট নারুহিতো করোনায় মারা যাওয়া ব্যাক্তিদের জন্য প্রার্থনা করেছেন।

ফিলিপাইন : ওমিক্রনের হুমকি মোকাবিলায় আগামী দুই সপ্তাহের জন্য বিধিনিষেধ আরোপের মধ্য দিয়ে ২০২২ সালকে বরণ করছে ফিলিপাইন। গতকাল শুক্রবার দেশটিতে গত দুই মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ দুই হাজার ৯৬১ জন করোনা শনাক্ত হয়।

 

পূর্ব ইউরোপের দেশ সার্বিয়ার রাজধানী বেলগ্রেডের রাস্তায় বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে লোকজনের নৃত্য। ছবি : সংগৃহীত

সার্বিয়া : পূর্ব ইউরোপের দেশ সার্বিয়ার রাজধানী বেলগ্রেডে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে হচ্ছে নববর্ষের কনসার্ট। বলকান দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র বেলগ্রেডই ঘটা করে নববর্ষের আয়োজন করেছে। অন্য দেশগুলোতে ওমিক্রন সতর্কতায় এসব বন্ধ রয়েছে। সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে (এপি) অস্ট্রিয়া থেকে বেলগ্রেডে আসা এক নারী বলেন, ‘আমি কেন ভয় পেতে যাব। আমরা বরং আমাদের জীবনটাকে উদ্‌যাপন করব।’

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ০১ জানুয়ারি ২০২২

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com