উৎসব মুখর পরিবেশে জর্জিয়ায় ভ্রাম্যমান দূতাবাসের কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

বুধবার, ১৭ জুন ২০১৫

উৎসব মুখর পরিবেশে  জর্জিয়ায় ভ্রাম্যমান দূতাবাসের কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

শনিবার রিপোর্টঃ জর্জিয়া বাংলাদেশ সমিতির উদ্যোগে পাঁচদিন ব্যাপি ভ্রাম্যমান দূতাবাসের কার্য্যক্রম গত ১৫ জুন সোমবার শেষ হয়েছে। ১১ জুন থেকে ১৫ জুন প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা/১০টা অব্দি দারুণ ব্যস্ততার মাঝে কার্য্যক্রম  স্থানীয় সোনালী এক্সচেঞ্জ  অফিসে অনুষ্ঠিতন হয়। ১২ জুন থকে ১৫ জুন চারদিন ব্যাপি এ অনুষ্ঠানের ঘোষণা থাকলেও দুতাবাস কর্মীরা আগেভাগে আটলান্টায় চলে আসায় একদিন আগেই এর কার্যক্রম শুরু হয়।

জর্জিয়া বাংলাদেশ সমিতির কর্তৃক শনিবারের চিঠিকে জানানো হয়েছে  পাসপোর্ট নবায়ন, নো ভিসা রিকয়ার, জরুরী নথিপত্র সত্যায়িত, পাওয়ার অব এ্যাটর্ণী, দ্বৈত নাগরিকত্ব আবেদনপত্র এমআরপি (মেসিন রেডাবল পাসপোর্ট) সহ মোট ৭শত ৯৬ জনকে কন্সুলেট সেবা প্রদান করা হয়।  এর মধ্যে মোট ৩শত ৪৭ টি ছিল এমআরপি  । বাংলাদেশিদের নতুন পাসপোর্ট এমআরপি  তৈরির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দূতাবাস  ওয়াশিংটনের পর এই প্রথমই আটলান্টাতেই সম্পন্ন করা হল।


embassy-out-side-office

বারান্দায় লম্বা ভিড় অলস বসে আছেন কয়েকজন ছবিঃ ফেসবুক

এ প্রতিনিধি কার্যক্রমের গতিবিধি পর্যাবেক্ষণে ভ্রাম্যমান দুতাবাসের স্থল প্রতিদিনই প্রচুর পরিমানে ভিড় লক্ষ করেন। সোনালী এক্সচেঞ্জ অফিস ছোট্ট পরিসারে থাকায়  সেখানে সেবাগ্রহণকারীদের জন্য বিশ্রামের বা ফরম ফিলাপ করার নির্ধারিত কোন স্থান না থাকায় অনেককে বারান্দায় বসে ফরম ফিলাপ করতে দেখা গেছে।  এ ব্যাপারে জর্জিয়া বাংলাদেশ সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ প্রতিনিধিকে জানান, আমরা প্রতি বছরই জর্জিয়া প্রবাসীদের এ সেবা প্রদানের ব্যবস্থা করে থাকি কিন্তু এত ভিড় পূর্বে কখনও পরিলক্ষিত হয় নি। আগামিতে যেন এমন ভোগান্তি না হয় আমরা সেদিকে লক্ষ্য রাখব।  তাৎক্ষণিক ভাবে পাসপোর্ট ছবি তোলার ব্যবস্থা থাকবে বলা হলেও তা ছিল ক্রটিপূর্ণ।

DSCN2265

জনৈক ব্যক্তি বারান্দায় বসে এনআরভি ফরম ফিলাপ করছেন ছবিঃ শনিবারের চিঠি

জর্জিয়া বাংলাদেশ সমিতি যেহেতু জর্জিয়া প্রবাসীদের মূল সংগঠন তাই এই কর্মসুচীতে স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠন সহযোগিতায় এগিয়ে আসে । উল্লেখযোগ্যদের মধ্যে জর্জিয়া আওয়ামী লীগ, জর্জিয়া বিএনপি, জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েসন, বাংলাধারাসহ আরো সংগঠন।

উল্লেখযোগ্যদের মধ্যে জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহম্মদ আলী হোসেন, সহ সভাপতি শেখ জামাল, জর্জিয়া বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী খান সজল, মোহন জব্বারসহ আরো অনেকে ।

এছাড়াও এ্যাভোকেট  ইলা চন্দ,  রেবেকা খাতুন, দেবযানী সাহা, ইমদাদুল ইসলাম এমদাদ, অসীম সাহা,  অভিষেক শ্যাম, মহিন উদ্দিন দুলাল, ইলিয়াস হাসান, মাহবুবুর রহমান ভুঁইয়া,  নাজরিন হোসেন, সালমা হোসেন, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।  সোনালী একচেঞ্জের ম্যানেজার বোরহান উদ্দিনকেও  বিশেষ সহযোগীতা করতে দেখা যায়।

এই কর্মসূচী সাফল্য করতে বাংলাদেশ দূতাবাস ওয়াশিংটন  ডিসি থেকে তিন সদসের একটি টিম জর্জিয়া আসেন । টিম লিডার হিসেবে দায়িত্ব ছিলেন দূতাবাসের রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বিভাগের কন্সুলার তওফিক হাসান ও অপর দুই সহযোগী কর্মকর্তা ছিলেন আব্দুল  মান্নান ও আহসান উল্লাহ।

এখানে একটি স্থায়ী কন্সুলার অফিস খোলার  জর্জিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা । বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন  পর্যায়ের  কর্মকর্তা বা রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ বিভিন্ন সময়ে স্থায়ী কন্সুলর অফিস খোলার আশ্বাস দিলেও আজও তা আলোর  মুখ দেখেনি।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / ১৭ জুন ২০১৫

 

 

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:০৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৭ জুন ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com