আটলান্টায় কনস্যুলেট অফিস স্থাপনের দাবীতে সমাবেশ

মঙ্গলবার, ০৫ নভেম্বর ২০১৯

আটলান্টায় কনস্যুলেট অফিস স্থাপনের দাবীতে সমাবেশ

Probashষ্টাফ রিপোর্টারঃ আটলান্টায় একটি স্থায়ী কনস্যুলেট অফিস স্থাপনের দাবিতে সোচ্চার হয়ে উঠেছে জর্জিয়াপ্রবাসী বাংলাদেশিরা।

২ নভেম্বর বেলা একটায় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার উদ্যোগে স্থানীয় একটি রেস্তোরাঁয় এ লক্ষ্যে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মোস্তফা মাহমুদ। সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক এ এইচ রাসেল।


জর্জিয়ার আটলান্টায় একটি কনস্যুলেট স্থাপনের দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন—বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সভাপতি মোস্তফা মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক এ এইচ রাসেল, ব্যবসায়ী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম বাবু, মাহবুবর রহমান ভূঁইয়া, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরেফিন বাবুল, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ জামান ঝন্টু, আওয়ামী লীগের নেতা মশিউর রহমান চৌধুরী, জর্জিয়া বিএনপির সভাপতি নাহিদুল খান সাহেল, স্থানীয় ডোরাভিল সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থী এম ডি নাসের, ইউএস কংগ্রেস জর্জিয়া ডিস্ট্রিক্ট ৭ এর কংগ্রেসম্যান পদপ্রার্থী রশিদ মালিক, জর্জিয়া স্টেট সিনেটর ১৪ এর সিনেটর পদপ্রার্থী ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।

আরেফিন বাবুল বলেন, আমরা ২০০৫ সালে যখন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনে ছিলাম তখন থেকে একটা কনস্যুলেট অফিস স্থাপনের চেষ্টা করেছিলাম। অদ্যাবধি আলোর মুখ দেখিনি।

সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ জামান ঝন্টু বলেন, ২০১২ সালে এখানে একটি কনস্যুলেট স্থাপনের কথা উঠেছিল কিন্তু জর্জিয়াপ্রবাসী বাংলাদেশিদের কলহের কারণে তা আর এগোয়নি।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সভাপতি মোস্তফা মাহমুদ বলেন, জর্জিয়ার আটলান্টা আমেরিকার একটি অন্যতম শহর। ১৯৯৬ সালে এই শহরে অলিম্পিক খেলা অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৬ বছরে এই শহর ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে প্রথম হয়েছে। এখানে রয়েছে বিশ্বখ্যাত কোমল পানীয় কোকাকোলা, সিএনএন, বিখ্যাত এয়ারলাইনস ডেলটা এয়ার, হোম ডিপোর্ট, ওয়াফেল হাউসসহ বড় বড় কোম্পানির প্রধান কার্যালয়। আমি মনে করি ফ্লোরিডার চেয়ে জর্জিয়ার আটলান্টার জন্য কনস্যুলেট অফিস অনেক উপযোগী।

মোস্তফা মাহমুদ আরও বলেন, জর্জিয়ায় প্রায় ৪০ হাজার বাংলাদেশি বসবাস করছেন। এ ছাড়া পার্শ্ববর্তী অঙ্গরাজ্য টেনেসি, আলাবামা, নর্থ ও সাউথ ক্যারোলাইনায় বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি বসবাস করেন। ভৌগোলিক বিবেচনায় জর্জিয়ার আটলান্টায় কনস্যুলেট অফিস হলে এই ছয় অঙ্গরাজ্যের প্রবাসী বাংলাদেশিরা কনস্যুলেটের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

mah

উপস্থিত সূধীমন্ডলীর একাংশঃ ছবি শনিবারের চিঠি

সাধারণ সম্পাদক এ এইচ রাসেল বলেন, আপনারা সবাই জানেন, আটলান্টায় বাংলাদেশ সরকারের সোনালী এক্সচেঞ্জ নামে একটি মানি রেমিট্যান্স অফিস রয়েছে। ১০ বছর ধরে আমেরিকার অন্যান্য শাখার চেয়ে আটলান্টা শাখা সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আয় করে যাচ্ছে। এখানে একটি কনস্যুলার অফিস খোলা হলে সে অফিসটিও আশানুরূপ রাজস্ব অর্জনে সক্ষম হবে।

আওয়ামী লীগের নেতা মশিউর রহমান চৌধুরী বলেন, জাতিসংঘের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি আবদুল মোমেন আমাদের কাছের মানুষ। তিনি নিউইয়র্কে থাকাকালীন জর্জিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্পর্কে জানেন। তাঁর মাধ্যমেই প্রধানমন্ত্রীর কাছে আটলান্টায় কনস্যুলেট অফিস স্থাপনের দাবি পৌঁছে দিতে হবে।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন—এম মওলা দিলু, রুমী কবির, মামুন শরীফ, নজরুল ইসলাম, আহমাদুর রহমান পারভেজ, আরিফ আহমেদ, মিনহাজুল ইসলাম বাদল, অসীম সাহা, দেবযানী সাহা, ওয়াসি উদ্দিন, ইউসুফ আলী, মোহাম্মদ আলী খান সজল, রায়হান রাহী, সাদমান সুমন, মাহবুব আলম সাগর, অভিষেক শ্যাম প্রমুখ।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / নভেম্বর ০৫,২০১৯

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ০৫ নভেম্বর ২০১৯

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com