আগামিকাল নিউইয়র্কে বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন

শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৬

আগামিকাল নিউইয়র্কে বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন

শহিদুল ইসলাম,নিউইয়র্কঃ আগামিকাল  ২৩ অক্টোবর রবিবার নিউইয়র্কে বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন । এদিন নিউইয়র্কের পাঁচটি কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টা একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। বাংলাদেশ সোসাইটির ইতিহাসে এই প্রথম সর্বোচ্চ সংখ্যক ১৮ হাজারেরও বেশী প্রবাসী বাংলাদেশি তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এবারের নির্বাচনেও দুটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। প্যানেল দুটি হচ্ছে কুনু-আজম ও কামাল-রুহুল প্যানেল। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ মোট ১৯টি পদে ৩৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাদের মধ্যে একমাত্র সভাপতি পদে তিনজন প্রার্থী রয়েছেন। তবে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অধিকাংশ পদের প্রার্থীরা একাধিকবার বাংলাদেশ সোসাইটিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন। আবার কয়েকজন প্রার্থী আছেন, যারা প্রতিবছরই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। কে যোগ্য তা নির্ধারণ হবে ২৩ অক্টোবরের নির্বাচনে। যদিও ভোটার করার ‘অসুস্থ’ প্রক্রিয়া নিয়ে কমিউনিটিতে নানান সমালোচনা রয়েই গেছে। ১৮ হাজারের বেশী সদস্য বা ভোটার হলেও তাদের অধিকাংশই প্রার্থীদের অর্থে ভোটার হয়েছেন, যা যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে প্রতিবছরই। যে প্রার্থী যত বেশী ভোটার করেছেন তার জয়ের সম্ভাবনাই বেশী থাকে। এ কারণে সাধারণ সদস্যরা ভোটার করার এই প্রক্রিয়াকে ‘অসুস্থ’ বলছেন।


এদিকে গত ১৬ অক্টোবর দুপুরে বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ টিপু সুলতান জানিয়েছেন, নির্বাচন অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে তিনি সবার সহযোগিতা চেয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে  অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কমিশনার মোহাম্মদ এ হাকিম, মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ জামান তপন, ইউনুস সরকার ও প্রিজাইডিং অফিসার সাইফ আজাদ।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ টিপু সুলতান তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, এবার বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন ৫টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। ভোট গ্রহণ শুরু হবে সকাল ৯টায় এবং শেষ হবে রাত ৯টায়। তবে রাত ৯টা পর্যন্ত যারা লাইনে থাকবেন তাদের ভেতরে ঢুকিয়ে দরজা লাগিয়ে দেয়া হবে। তিনি বলেন, নির্বাচনকে সুষ্ঠু, সুন্দর ও নিরপেক্ষ করার লক্ষ্যে কমিশনের পক্ষ থেকে সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আমরা দুই বার সকল প্রার্থীর সাথে নির্বাচন সংক্রান্ত সকল পরামর্শ, অনুযোগ ও অভিযোগ আমলে নিয়ে মতবিনিময় করেছি। প্রতিবার সকল প্রার্থী, প্যানেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীকে সমান মূল্যায়ন আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশন সকল প্রার্থীর অধিকার নিশ্চিত করতে বদ্ধ পরিকর।

তিনি আরো বলেন, এবার সর্বাধিক সংখ্যক ভোটারের কথা চিন্তা করে প্রতিটি কেন্দ্রে যথোপযুক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা, যথেষ্টসংখ্যক ভোটিং মেশিন, পোলিং অফিসার, পুলিং এজেন্ট ও মেশিনম্যান নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সেই সাথে সকল কেন্দ্রে সার্বক্ষণিক ভিডিও রেকর্ডিং এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। কোন ভোটার নির্ধারিত আইডি (স্টেট আইডি, ড্রাইভিং লাইসেন্স, গ্রিনকার্ড, ওয়ার্ক পারমিট এবং বাংলাদেশ ও আমেরিকান পাসপোর্ট) ছাড়া ভোট প্রদান করতে পারবে না। তিনি বলেন, নো আইডি, নো ভোট। ৫টি কেন্দ্রেই আইডি নির্ধারক মেশিন ও অদৃশ্যকালীর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

চেয়ারম্যান আরো বলেন, ৫টি কেন্দ্রের জিপকোড অনুযায়ী ভোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্ধারিত ভোট কেন্দ্র ছাড়া একজন ভোটার অন্য কেন্দ্রে কোনভাবেই ভোট প্রদান করতে পারবেন না।

সবশেষে তিনি সকল বাংলাদেশীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ২৩ অক্টোবর ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দেয়ার আহবান জানান এবং নির্বাচন সুন্দর করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে  নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ টিপু সুলতান বলেন, এবারের নির্বাচনের বাজেট ৭০ হাজার ডলার নির্ধারণ করা হলেও সেই বাজেট ছাড়িয়ে যাবার আশঙ্কা রয়েছে। অন্য এক প্রশ্নের তিনি বলেন, নাম এবং জন্ম তারিখ ঠিক থাকলে ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন।

কমিশনের বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা যেসব অভিযোগ পেয়েছি তার সমাধান করেছি। তবে কী ধরনের অভিযোগ পেয়েছেন, তা না জানিয়ে এড়িয়ে যান তিনি। কোন কমিশনার কোন কেন্দ্রে থাকবেন এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উডসাইড কেন্দ্রে থাকবেন মোহাম্মদ এ হাকিম, ব্রুকলিন কেন্দ্রে থাকবেন ইউনুস সরকার, ওজনপার্ক কেন্দ্রে থাকবেন মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, ব্রঙ্কস কেন্দ্রে সাইফ আজাদ।

শনিবারের চিঠি/ আটলান্টা / অক্টোবর ২২, ২০১৬

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৬:৩৩ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৬

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com