আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ : কাদের

শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারি ২০১৮

আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ : কাদের

Rajnitiআওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল সম্পর্কে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ঘরের মধ্যে ঘর বানাবেন না। দলের নেতাদের সম্পর্কে অপপ্রচার বন্ধ করে দলের উন্নয়নের কথা জনগণকে বলুন।’

কাদের আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ হচ্ছে আওয়ামী লীগ। ঘরে ঘরে কলহ। দলের মধ্যে আরেক দল। এসব কলহ, কোন্দল আর সহ্য করা হবে না।’


আজ শুক্রবার মানিকগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচির অনুষ্ঠানে কাদের এসব কথা বলেন। বেলা ১১টার দিকে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, দল ভারির জন্য, পকেট ভারি করার জন্য দলে কোনো খারাপ চরিত্রের লোককে টানবেন না। এ ছাড়া দলের সদস্য সংগ্রহের নামে চিহ্নিত চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু, মাদকাসক্তদের দলে না নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন তিনি। এ ছাড়া কড়া ভাষায় নেতাদের তিনি জানিয়ে দেন, চিহ্নিত সাম্প্রদায়িক অপশক্তি, স্বাধীনতাবিরোধী কোনো ব্যক্তিকে দলে ঢোকানোর চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে হবে।

আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ভালো কাজের মাধ্যমে জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় যেতে চায় আওয়ামী লীগ। জনগণের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। আপনাদের খারাপ ব্যবহারের কারণে দলের সুনাম ম্লান হয়ে যায়।’ সেসব কাজ থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেন তিনি। দলের নেতাকর্মীদের গ্রামে গিয়ে ঘরে ঘরে যাওয়ার নির্দেশ দেন। কাদের বলেন, ‘কতজন অন্য পার্টি করে, তার তালিকা করুন। এ ছাড়া নিরপেক্ষদেরও তালিকা করুন।’

মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহীউদ্দীনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালামের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন, আবদুল মান্নান খান,  উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মুকুল বোস, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, দলের কেন্দ্রীয় সদস্য আক্তারুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন, সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম ও নাঈমুর রহমান দুর্জয়।

কাদের দলীয় নেতাদের উদ্দেশে বলেন, ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। নির্বাচনের আর বেশি দিন বাকি নেই। ৭/৮ মাস পরেই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা হবে। দলের মনোনয়ন জরিপ হচ্ছে। তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলনের নামে দফায় দফায় হুমকি দিচ্ছে। দেখতে দেখতে তাদের আন্দোলন নয় বছর পার হয়ে গেছে। বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। তিনি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে বলেন, ‘তিনি এখন জ্যোতিষী হয়ে গেছেন। নির্বাচনটা হোক, কত ধানে কত চাল। এরপর দেখবেন বিএনপি কোথায় যায়।’

এদিকে, অনুষ্ঠানে মানিকগঞ্জের তিনজন এমপি তাঁদের সদস্যপদ নবায়ন করেন। এ ছাড়া কয়েকজন সদস্যপদ গ্রহণ করেন।

শনিবাবের চিঠি / আটলান্টা/ ২৬ জানুয়ারি২০১৮

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ৮:০৪ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারি ২০১৮

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com