অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে বাংলাদেশকে দুষল মিয়ানমার

শনিবার, ০৬ জুন ২০১৫

অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে বাংলাদেশকে দুষল মিয়ানমার

 

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের সমস্যার জন্য বাংলাদেশকেই দুষল মিয়ানমার। দেশটির এক মন্ত্রী দাবি করেছেন, অতিরিক্ত জনসংখ্যা ও অর্থনৈতিক সুযোগের অভাবে বাংলাদেশিরা অবৈধপথে বিদেশ যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, স্রেফ রাজনৈতিক কারণে অনেক বাংলাদেশি নিজেদেরকে মিয়ানমারের নাগরিক বলে দাবি করেন।


বৃহস্পতিবার রাখাইন উপজাতি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ইউ জ আইয়ি মাউং এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ঘন জনসংখ্যা ও বিশালাকারে জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে সেখানে (বাংলাদেশে) অর্থনৈতিক সুযোগ কম। এসব লোকদের জন্য এটা খুবই স্বাভাবিক যে তারা মিয়ানমার, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও অন্যান্য প্রতিবেশী দেশগুলিতে অভিবাসী হওয়া। এটা শুধু বর্তমান সময়ে নেয় বরং যুগ যুগ ধরে চলে আসছে।’

প্রসঙ্গত, গত মাসের শুরুতে থাইল্যান্ডের জঙ্গলে অভিবাসন প্রত্যাশীদের ৩২টি কবরের সন্ধান পাওয়া যায়। এরা সবাই ছিলেন মিয়ানমারে জাতিগত সহিংসতার স্বীকার রোহিঙ্গা মুসলমান ও বাংলাদেশের নাগরিক। এরপরই মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামে থাই কর্তৃপক্ষ। পরে নিজেদের উপকূলীয় এলাকা থেকে প্রায় সাড়ে তিন হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করে ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ড। এছাড়া গত মাসে নিজেদের উপকূলীয় এলাকা থেকে দুই দফায় ৯ শতাধিক অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করে মিয়ানমার। দেশটির কর্তৃপক্ষের দাবি এরা সবাই বাংলাদেশি। তবে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে এদের মধ্যে তিন থেকে পাঁচ শতাধিক রোহিঙ্গা রয়েছে। মিয়ানমার অবশ্য রোহিঙ্গাদের নিজেদের নাগরিক বলে স্বীকার করে না। তাদের দাবি, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি। তারা অবৈধভাবে মিয়ানমারে অনু্প্রবেশ করেছে।

 শনিবারের চিঠি / আটলান্টা / ০৬ জুন ২০১৫

 

Facebook Comments Box

বাংলাদেশ সময়: ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ০৬ জুন ২০১৫

https://thesaturdaynews.com |

Development by: webnewsdesign.com